• search

বরখাস্ত হওয়ার বিরুদ্ধে মামলা তুলে নিলেন আপ বিধায়করা, কেন জানেন

Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    নির্বাচন কমিশনের পরামর্শ মেনে দিল্লি বিধানসভার আম আদমি পার্টি বিধায়কদের বরখাস্ত করেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ । এরপর সোমবার সমস্ত আপ বিধায়করা তাঁদের মামলা দিল্লি হাইকোর্ট থেকে তুলে নেন। উল্লেখ্য, নির্বাচন কমিশনের তরফে তাঁদের বরখাস্তের খবর আসতেই দিল্লি হাইকোর্টে , এই বরখাস্তের বিরুদ্ধে মামলা করেন ২০ জন আপ বিধায়ক।

    বরখাস্ত হওয়ার বিরুদ্ধে মামলা তুলে নিলেন আপ বিধায়করা, কেন জানেন

    ২০ জন বিধায়কদের তরফের আইনজীবী দিল্লি হাইকোর্টকে জানান, রাষ্ট্রপতির তরফে এই বরখাস্তের পত্র গ্রহণ করে নেওয়ার পর, গোটা মামলার আর কোনও মেধা রইল না। আর রাষ্ট্রপতির নেওয়া পদক্ষেপের বিরুদ্ধে আর কোনও আইনি পদক্ষেপ নিতে চান না তাঁরা। উল্লেখ্য, লাভজনক পেশায় যুক্ত থাকার দায়ে ২০ জন আপ বিধায়ককে বরখাস্ত করার কথা জানায় নির্বাচন কমিশন।

    এদিকে, গোটা ঘটনার জন্য বিজেপিকে দায়ী করেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। তাঁর দাবি, বিধায়কদের ওপর ভুয়ো মামলা চাপিয় দিয়েছে সরকার। কেজরিওয়ালের দাবি ,'তারা(সরকার) আমার দফতরেও তল্লাশি চালিয়েছিল ,তবে ৪ টে মাফলার ছাড়া কিছু বার করতে পারেনি। তারা (বিজেপি সরকার) সব কিছু চেষ্টা করেছে। কোনও কিছুই না করতে পেরে ,শেষে বিধায়কদের বরখাস্তের রাস্তায় হেঁটেছে।'

    English summary
    A day after President Ram Nath Kovind approved the Election Commission’s recommendation to disqualify 20 AAP MLAs for holding ‘office of profit’, the affected legislators have withdrawn plea from Delhi HC seeking stay on the EC’s recommendation. AAP MLAs’ counsel informed the Delhi HC that their plea has become infructuous as President has accepted EC recommendation and notification disqualifying them has been issued.

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more