• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

    ১৮ বার 'মিসক্যারেজ', তবুও সুস্থ সন্তানের জন্ম দিয়ে নজির গড়লেন মহিলা

    ২০ বছরে ১৮ বার মিসক্যারেজ। শুনে অনেকই চমকে উঠতে পারেন! তারপরও সুস্থ পুত্র সন্তানের জন্ম দিলেন আগ্রার বাসিন্দা রজনী। প্রসঙ্গত, বহু মহিলাই বার বার গর্ভপাতের ঘটনায় মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন। তাঁদের কাছে এই ঘটনা হয়তো আশার নতুন দিক উন্মোচন করতে পারে।

    ১৮ বার মিসক্যারেজ বা গর্ভপাত হলেও হাল কিছুতেই ছা়ডেননি আগ্রার বারহান গ্রামের রজনী। আর তাঁর এই সিশুর জন্ম দিতেই ,গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম ওঠে রজনীর। ৩৮ বছর বয়সী রজনী আগ্রার এক বেসররকারি হাসপাতালে ল্যাপ্রোস্কপি অপরেশনের মাধ্যমে জন্ম দেন সন্তানের। এরকম এক সাফল্যে উচ্ছসিত রজনীর চিকিৎসক ডঃ অমিত ট্যান্ডন ও আইভিএফ বিশেষজ্ঞ ডাক্তার বৈশালী।

    ১৮ বার 'মিসক্যারেজ', তবুও সুস্থ সন্তানের জন্ম দিয়ে নজির গড়লেন মহিলা

    ডঃ ট্যান্ডন জানিয়েছেন যে রজনীর ইনকম্পিটেন্ট সার্ভিক্সের-এর সমস্যা ছিল। তাঁর ইউটেরাসের মুখ অত্যন্ত দুর্বল হওয়ায় তা ভ্রুণ ধরে রাখতে পারছিল না। তারপর তাঁর গর্ভবতী হওয়ার ৩ মাস অবস্থায়, স্টিচ করা হয় সার্ভিক্সে। এরপরই আসে সাফল্য।

    English summary
    a 38-year-old woman who after decades of trying finally gave birth to a baby. Though at the outset this might appear to be a simple story of new parents, the events that took place before the birth make it anything but.Rajani, the new mother, is reported to have suffered 18 miscarriages in a span of 20 years till she was finally able to deliver her boy. And the struggle along with the final outcome is being described as a medical miracle of sorts.
    For Daily Alerts

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    Notification Settings X
    Time Settings
    Done
    Clear Notification X
    Do you want to clear all the notifications from your inbox?
    Settings X
    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more