• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

করোনা আতঙ্কের মাঝে টেস্ট না করিয়েই শিলচর বিমানবন্দর ছেড়ে পালালেন ৩০০ জন যাত্রী

দেশজুড়ে করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ওয়েভের সংক্রমণ দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে। কেন্দ্র সরকার বারংবার যখন দেশের নাগরিকদের সচেতন ও সতর্ক হতে বলছেন, ঠিক সেই সময়ই ৩০০ জন বিমান যাত্রী কোভিড টেস্ট না করিয়েই পালিয়ে গিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠল। জানা গিয়েছে, বুধবার অসমের শিলচর বিমানবন্দরে অবতরণ করেন ৩০০ জন যাত্রী কিন্তু বিমানবন্দরে বাধ্যতামূলক কোভিড টেস্ট না করিয়েই তাঁরা করোনা টেস্টের কেন্দ্র থেকে পালিয়ে যান।

বাধ্যতামূলক ‌র‌্যাট ও আরটি–পিসিআর টেস্ট

বাধ্যতামূলক ‌র‌্যাট ও আরটি–পিসিআর টেস্ট

অসম সরকারের সংশোধিত নিয়মানুসারে দ্বিতীয় কোভিড ওয়েভের মহামারির জন্য বাইরে থেকে আসা সব বিমান যাত্রীদের বিমানবন্দরে র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট (‌র‌্যাট)‌ ও আরটি-পিসিআর টেস্ট করা বাধ্যতামূলক। যেহেতু শিলচর বিমানবন্দর অনেকটাই ছোট, তাই বিমানবন্দর সংলগ্ন টিকল মডেল হাসপাতালে এই টেস্টের বন্দোবস্ত করা হয়েছে।

১৮৯ জনের টেস্ট হয়

১৮৯ জনের টেস্ট হয়

কাছার জেলার এডিসি স্বাস্থ্য সুমিত সত্যবান বলেন, ‘‌বুধবার ৬৯০ জন যাত্রী শিলচর বিমানবন্দরে অবতরণ করেন। কিছু যাত্রীকে ছাড় দেওয়া হয়েছিল কারণ তাঁরা অন্য উত্তর-পূর্ব রাজ্যে যাচ্ছিলেন। মোট ১৮৯ জনের করোনা টেস্ট করা হয়। যার মধ্যে ৬ জন পজিটিভ ছিলেন।'‌ স্বাস্থ্য আধিকারিক এও জানিয়েছেন যে ৩০০ জন টেস্ট না করিয়েই চলে গিয়েছেন। কীভাবে তাঁরা টেস্ট না করে পালিয়ে গেলেন ও প্রকৃত সত্য কি এবং অন্যান্য তথ্যের জন্য তদন্ত করা হচ্ছে। যে সব যাত্রী তাঁদেরকে চেনেন সেই সব যাত্রীদেরও সনাক্ত করা হচ্ছে।

গুগল সার্চেও করোনা উদ্বেগ, মহামারি সংক্রান্ত কোন কোন বিষয় সবথেকে বেশি খোঁজ করছে ভারত

 টেস্ট করাতে অনিচ্ছুক ছিলেন যাত্রীরা

টেস্ট করাতে অনিচ্ছুক ছিলেন যাত্রীরা

নাম প্রকাশে অনিচ্ছিক এক আধিকারিক জানিয়েছেন যে ওই যাত্রীরা টেস্ট করাতে ইচ্ছুক ছিল না বলে সহযোগিতা করেননি। তাঁরা স্বেচ্ছায় করোনা টেস্ট কেন্দ্র ছেড়ে চলে যান। এডিসি সত্যবান জানিয়েছেন যে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ করোনা টেস্ট কেন্দ্রে যাত্রীদের নিয়ে আসার জন্য বাসের বন্দোবস্ত করেছিলেন। যাত্রীরা অনেকে নিজেদের গাড়ি করেও সেন্টারে যান। সেক্ষেত্রে গাড়ি ও চালকের তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। যে সব যাত্রীরা পালিয়ে গিয়েছেন তাঁদের খোঁজ করছে পুলিশ। তাঁদের বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মামলা দায়ের হবে তাঁদের বিরুদ্ধে।

 অসমের পরিস্থিতি

অসমের পরিস্থিতি

প্রসঙ্গত, কাছার জেলায় নতুন করে ৪৮ জনের করোনা ভাইরাস ধরা পড়েছে। বুধবার অসমে মোট দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ১,৬৬৫ জন, পজিটিভ কেসের হার ২.‌৬৮ শতাংশ। রাজ্যে সক্রিয় করোনা কেস ৯,০৪৮টি। করোনা সংক্রমণ দমন করতে রাজ্য সরকার তাই কিছু কড়া নিয়ম জারি করেছে, যার মধ্যে সন্ধ্যা ৬টার পর আর কোনও দোকান-পাট, রেস্তোরাঁ, শপিং মল খোলা থাকবে না।

English summary
300 air passengers skip mandatory covid 19 test flee silchar airport
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X