ফের ছেলেধরা সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা! মহারাষ্টের ধুল জেলায় গ্রেপ্তার ২৩

  • Posted By: Amartya Lahiri
Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    মহারাষ্ট্রের ধুল জেলায় ৫ ব্যক্তিকে পিটিয়ে মারার অভিযোগে রাইনপাড়া গ্রামের ২৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হল। রবিবার আরও একটি নক্কারজনক গনহিংসার ঘটনার সাক্ষি হয়েছে দেশ। রাইনপাড়া গ্রামে শিশু অপহরণকারী সন্দেহে ৫ ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়।

    ফের ছেলেধরা সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা!

    গত কয়েকদিন ধরেই ওই এলাকায় শিশু অপহরণকারীদের একটি দল ঘোরাফেরা করছে বলে গুজব ছড়িয়েছিল। পুলিশ জানিয়েছে রবিবার ওই ৫ ব্যক্তি বাসে করে আদিবাসী অধ্যুষিত রাইনপাড়ায় আসেন। রবিবার ছিল হাটবার। অনেক গ্রামবাসীই জড়ো হয়েছিলেন হাটে। সেখানেই ওই ৫ জনের একজন একটি শিশুর সঙ্গে কথা বলতে গেলে গ্রামবাসীরা তাঁদেরকে অপহরণকারী হিসেবে সন্দেহ করেন। এরপরই সমবেতভাবে তাদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে গ্রামবাসীরা। তাঁদের পিটিয়ে মেরে ফেলা হয়।

    ওই ঘটনার পর থেকেই এলাকা থমথমে হয়ে আছে। ধুল জেলার এসপি এম রামকুমার জানিয়েছেন ঘটনার পর থেকেই প্রায় ২৫০ জনেরও বেশি গ্রামবাসী পালিয়েছেন। মহারাষ্ট্রের গ্রামোন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী দীপক কেসরকার বলেন, 'আমি সকলের কাছে আবেদন করছি সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্টে বিশ্বাস করবেন না। আইন নিজেদের হাতে তুলে নেওয়া উচিত নয়।'

    সারা দেশেই একের পর এরকম গনহিংসার ঘটনা ঘটে চলেছে। কখনও শিশু পাচারকারি সন্দেহে, কখনও গোমাংস নিয়ে যাওয়ার সন্দেহে একের পর এক পিটিয়ে মারার ঘটনা ঘটেছে। এর আগে অসমে বেড়াতে যাওয়া দুই বন্ধুকে গাছের সঙ্গে বেঁধে পিটিয়ে মারার ঘটনায় দেশে যথেষ্ট হইচই হয়েছিল। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই পেছনে ছিল গুজব।

    English summary
    23 people have been arrested from Rainpada village in connection with the lyching of five people in Dhule district of Maharashtra.

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more