• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

মরুরাজ্য রাজস্থানে প্রবল বৃষ্টিতে নিহত ২২, দেশের বাকি রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতি একনজরে

ক্রমেই দেশের বিভিন্ন রাজ্যে প্রকৃতির রক্তচক্ষু আরো জোরদার হচ্ছে। একের পর এক রাজ্যে বর্ষা আসতেই শুরু হয়েছে প্লাবনের তাণ্ডব। অসম, বিহার, মহারাষ্ট্রের পর এবার রাজস্থানেও বন্যার প্রবল প্রভাব পড়তে চলেছে। একনজরে দেখে নেওয়া যাক দেশের বিভিন্ন জায়গায় আবহাওয়ার পরিস্থিতি কীরকম।

রাজস্থানের প্রাকৃতিক অবস্থা

রাজস্থানের প্রাকৃতিক অবস্থা

রাজস্থানের প্রাকৃতিক পরিস্থিতি ক্রমেই খারাপের দিকে। মরু রাজ্য রাজস্থানের ২২ জন ইতিমধ্যেই মারা গিয়েছেন বৃষ্টির তাণ্ডবের জেরে। শনিবার থেকে মরুরাজ্যে অঝোরে শুরু হয়েছে বর্ষণ। সঙ্গে রয়েছে ঝড়ও। পরিস্থিতি এতটাই উদ্বেগজনক যে ২৫০ জনকে ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় দিতে হয়েছে। কোটা এলাকায় কার্যত বন্যা পরিস্থিতি ব্যাপক আকার নিতে শুরু করেছে।

কমলা সতর্কতা মুম্বইয়ে

কমলা সতর্কতা মুম্বইয়ে

প্লাবিত মহারাষ্ট্রের একাধিক জায়গা। বৃষ্টির জেরে সতর্কতা জারি করেছিল আবহাওয়া দফতর। সেই লাল সতর্কতা বর্তমানে কমলা সতর্কতায় রূপান্তরিত হয়। মুম্বই, থানে পলঘরে জারি রয়েছে সতর্কতা।

বিহার-অসমে ২০৯ জনের মৃত্যু

বিহার-অসমে ২০৯ জনের মৃত্যু

বিহার অসমে বন্যার জেরে ২০৯ জনের মৃত্যু হয়েছে এপর্যন্ত । বিহারে একাধিক নদীর জল যেমন ফুঁসছে ,তেমনই অসমেও পরিস্থিতি অত্যন্ত খারাপ। অসমে ১৬ টি জেলা যেমন জলের তলায়, তেমনই বিহারে ২৯টি জেলা আপাতত প্লাবিত।

English summary
The death toll in rain-related incidents in Rajasthan touched 22 Sunday after nine more causalities were reported from various parts of the state. Continuous rain since Saturday night created a flood-like situation in Kota, which recorded a maximum of 151.8mm of rain till morning. As many as 250 people living in low-lying areas of the city were shifted to safe zones by SDRF teams.
For Daily Alerts
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X
We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more