India
  • search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts
Oneindia App Download

মসজিদ ভাঙচুরের ভুয়ো খবর প্রচার, ত্রিপুরায় আটক ২ মহিলা সাংবাদিক

Google Oneindia Bengali News

ত্রিপুরায় গ্রেফতার ২ মহিলা সাংবাদিক। সমৃদ্ধি সাকুনিয়া এবং স্বর্ণ ঝাঁ নামে দুই মহিলা সাংবাদিককে গ্রেফতার করেছে ত্রিপুরা পুলিশ। অসমের নিলম বাজারে দুটি মসজিদ ধ্বংসার মিথ্যে খবর নিয়ে প্রচার করেছিলেন তিনি। ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারায় তাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অসমের করিমগঞ্জ জেলার নিলম বাজার থানা এলাকার পুলিশ তাঁদের গ্রেফতার করে বলে জানা গিয়েছে।

 ত্রিপুরায় আটক ২ মহিলা সাংবাদিক


তাঁদের বিরুদ্ধে ১৫৩এ, ১৫৩বি, ১৯৩, ৫০৪, ১২০বি এবং ২০৪ ধারায় মামলা দায়ের করা করা হয়েছে। পুলিশ বিবৃতি জারি করে জানিয়েছে, ওড়িশার ঝাড়সুগুড়ার মানওার পাড়ার বাসিন্দা গোপাল সুকানিয়ার মেয়ে সমৃদ্ধি সুকানিয়া এবং দিল্লির রোহিনীর রত্নেশ্বর ঝাঁয়ের মেয়ে স্বর্ণ ঝাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ১১ নভেম্বর তাঁরা ত্রিপুরায় এসেছিলেন রিপোর্টিং করতে। তাঁদের বিরুদ্ধে অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অসমের নিলম বাজারে মসজিদ ভাঙচুরের ভুয়ো খবর তারা প্রকাশ করেছে বলে অভিযোগ। পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে নিলম বাজার এলাকায় কোনও মসজিদে কোরান শরিফ পোড়ানো হয়নি।একেবারেই মিথ্যে খবর প্রচার করেছেন এই দুই সাংবাদিক।

দুই সাংবাদিকের গ্রেফতারির তীব্র নিন্দা করেছে এডিটর গিল্ড। ধৃত দুই সাংবাদিককে অবিলম্বে মুক্তির দাবি জানিয়েছেন তাঁরা। ত্রিপুরা পুলিশের দাবি ষড়যন্ত্র করেই দুই সাংবাদিককে ত্রিপুরায় পাঠানো হয়েছিল। মহারাষ্ট্রের অমরাবতীর সাম্প্রতিক হিংসার ঘটনা থেকে সূত্র সংগ্রহ করে এই ঘটনার নেপথ্যে ষড়যন্ত্র রয়েছে কিনা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। ঘটনার পরেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, ত্রিপুরায় যে মসজিদ ধ্বংসের ছবি প্রকাশ্যে এসেছে সেটা একেবারেই ভুয়ো বলে দাবি করেছেন তিনি। ত্রিপুরায় কোনও রকম ধর্ষণ এবং নির্যাতনের ঘটনা ঘটেনি বলেও দাবি করা হয়েছে। ত্রিপুরার গোমতি এবং কাকরাবান জেলায় একের পর মসজিদ ভাঙচুরের যে ছবি সম্প্রচার করা হয়েছে সেটা একেবারেই ভুয়ো বলে দাবি করা হয়েছে। কোনও রকম মসজিদ সেখানে ভাঙচুর করা হয়নি। রাজ্যেপ শান্তি শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণেই এই যড়যন্ত্র করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

অমরাবতীতে গত শুক্রবার প্রায় ৮০০০ মানুষ জমায়েত হয়েছিলেন, সেখানে জেলা শাসকের দফতরে ডেপুটশন দিয়েছিলেন তাঁরা। যাতে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিরাপত্তা সুরক্ষিত রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গত শুক্রবার নান্দেদ, অমরাবতী, মালেগাঁও,ওয়াসিম এবং যবতমল এলাকায় সাম্প্রদায়িত সংঘর্ষের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছিল সেখানে। দোকানপাট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল পরিস্থিতি মোকাবিলায়।

করোনা বিধি মেনেই খুলতে চলেছে ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলের স্কুল গুলি

English summary
2 Women journalist arrested
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X