তৎকাল-এ ট্রেনের টিকিট কাটা নিয়ে চিন্তায়! এই ধাপগুলি খেয়াল রাখলে সুবিধা আপনারই

Subscribe to Oneindia News
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    কোথাও যাবেন। কিন্তু, ট্রেনের টিকিট অধরা। একমাত্র সুযোগ রয়েছে তৎকালে। কিন্তু, সেখানেও এত ধরনের নিয়ম যে টিকিট কাটতে বেজায় অসুবিধা বোধ করেন বহু মানুষ। ফলে তৎকালে টিকিট থাকলেও তা কাটার সাহস দেখান না অনেকে।

    গত কয়েক বছরে তৎকাল টিকিট ক্রয়ে বেশকিছু নিয়মের পরিবর্তন হয়েছে ঠিকই। কিন্তু, এই নিয়ম আগের থেকে অনেকটাই সহজ। শুধুমাত্র কয়েকটি ধাপ খেয়াল রাখলেই নির্বিঘ্নে হাতে পেয়ে যেতে পারেন তৎকাল টিকিট। জেনে সেই ধাপগুলো

    তৎকাল টিকিট কী ?

    তৎকাল টিকিট কী ?

    তৎকাল মানে তাৎক্ষণিক। যারা অল্প সময়ের নোটিশে ট্রেন যাত্রার রিজার্ভড টিকিট পেতে চান, তাঁদের জন্য এই টিকিটের ব্যবস্থা আছে রেলের। যে স্টেশন থেকে যে দিন যাত্রা শুরু করবেন তার ২৪ ঘণ্টা আগে তৎকাল টিকিট কাটতে হয়। ধরুন আপনি ৩ নভেম্বর যাত্রা করবেন। তাহলে তৎকাল টিকিট কাটতে পারবেন ২ নভেম্বর সকাল ১০টায়।

    কী ভাবে তৎকাল টিকিট কাটবেন ?

    কী ভাবে তৎকাল টিকিট কাটবেন ?

    ইন্টারনেটেও তৎকাল টিকিট কাটতে পারবেন। এর জন্য অনলাইনে https://irctc.co.in-এ আপনাকে লগ ইন করতে হবে অথবা টিকিট কাউন্টারে গিয়ে তৎকাল টিকিট কাটতে পারবেন।

    সকাল ১০টায় তৎকাল টিকিট-এর উইন্ডো খোলে। তবে এই সময়ে শুধুমাত্র এসি- কামরার জন্য তৎকাল টিকিট দেওয়া হয়। যেমন - ১এ, ২এ, ৩এ, সিসি, ইসি, ৩ই এবং বেলা ১১টা থেকে দেওয়া হয় নন-এসি ক্লাস, যেমন স্লিপার, এফসি এবং ২এস।

    এই ২ ঘণ্টায় নন-তৎকাল টিকিট দেওয়া বন্ধ থাকে। তবে, ফার্স্ট এসি এবং এক্সিকিউটিভ ক্লাস-এর তৎকাল টিকিট দেওয়া হয় না।

    একটা তৎকাল টিকিটে ৪ জনের বেশি যাত্রী সফর করতে পারেন না। অনলাইনে যারা টিকিট কাটেন তাঁরা একটা সফরে সর্বোচ্চ তৎকালের ২টি টিকিট পেতে পারেন। ইউজার আইডি এবং আই-পি অ্য়াড্রেস পিছু এই তৎকালের নিয়ম লাগু করা আছে।

    তৎকালে যদি কিছু জনের টিকিট কনফার্মড হয় এবং কয়েক জন ওয়েটিং লিস্টে থাকলে কী করবেন?

    তৎকালে যদি কিছু জনের টিকিট কনফার্মড হয় এবং কয়েক জন ওয়েটিং লিস্টে থাকলে কী করবেন?

    দেখা গেল একটা তৎকাল টিকিটে চার জনের নাম আছে। কিন্তু, একজনের টিকিট কনফার্মড বা আরএসি হয়েছে। আর বাকি তিন জনের নাম ওয়েটিং লিস্টে আছে। তাহলেও যে একজনের টিকিট কনফার্মড বা আরএসি হয়েছে, তার সূত্র ধরেই বাকি তিন জন ট্রেনে চড়তে পারবেন। এমনকী, চার্ট তৈরির হওয়ার আগেই যদি এমন পরিস্থিতি
    তৈরি হয়, তাহলে বাকি তিনজনের টিকিটও কনফার্মড হয়ে যাওয়ার সুযোগ থাকে।

    তৎকাল টিকিট বাতিল ও অর্থ ফেরত পাওয়ার প্রক্রিয়া

    তৎকাল টিকিট বাতিল ও অর্থ ফেরত পাওয়ার প্রক্রিয়া

    আগে নিয়ম ছিল ওয়েটিং লিস্ট বা আরএসি তৎকাল টিকিট যাত্রা শুরুর ২৪ ঘণ্টা আগে বাতিল করতে হত। এখন যাত্রা শুরুর ৩০ মিনিট আগে তৎকালের ওয়েটিং বা কনফার্মড টিকিট বাতিল করা যায়।

    এমনকী অনলাইনে কাটা তৎকালের ওয়েটিং টিকিট নিজে থেকেই বাতিল হয়ে যায় ও অ্য়াকাউন্টে সরাসরি অর্থও ফেরত দিয়ে দেওয়া হয়। তবে, টিকিট কনফার্মড বা আরএসি হয়ে থাকলে তা নিজে থেকে বাতিল না করলে অর্থ অ্যাকাউন্টে ফেরত যায় না।

    এটাও মাথায় রাখতে হবে, যাত্রা শুরুর ৩০ মিনিট আগে তৎকাল টিকিট বাতিল করলে রেলের দেওয়া নিয়ম অনুসারেই অর্থ অ্যাকাউন্টে ফেরত যায়। কিন্তু, আবার দেখা গেল যে ট্রেনে আপনি তৎকাল টিকিটে যাত্রা করবেন তা ৩ ঘণ্টা দেরিতে চলছে, এক্ষেত্রে আপনি টিকিট বাতিল করলে টিকিট ডিপোজিট রিসিপট বা টিডিআর ফাইল করে আপনি পুরো অর্থই ফেরত পেয়ে যেতে পারেন।

    তৎকাল টিকিটে ক্যানসেলেশন চার্জ কতটা?

    তৎকাল টিকিটে ক্যানসেলেশন চার্জ কতটা?

    সেকেন্ড ক্লাসের তৎকাল টিকিট বাতিলে ১০ শতাংশ অর্থ কেটে নেওয়া হয়। এছাড়া অন্য সব ক্লাসের তৎকাল টিকিটে ক্যানসেলেশন চার্জ সর্বোচ্চ ৩০ শতাংশ। একনজরে উপরে দেওয়া চার্টটা দেখে নিন।

    কী ভাবে তৎকাল টিকিটে ভাড়া মেটাবেন?

    কী ভাবে তৎকাল টিকিটে ভাড়া মেটাবেন?

    অনলাইনে তৎকাল টিকিট কাটলে ই-পে-লেটার বা পে-অন-ডেলিভারি বলে দু'টো অপশন পাবেন। এই দুই অপশনের সাহায্যে টিকিট বুক করে পরে তার অর্থ চোকানোর সুযোগ পাবেন। এই সুবিধা পেতে গেলে এই দু'টো অপশনের যে কোনও একটি-তে ক্লিক করতে হবে।

    ই-পে-লেটার পরে আপনাকে একটি ইমেল এবং এসএমএস পাঠাবে। এতে একটি লিংক থাকবে। যেখানে গিয়ে ১৪ দিনের মধ্যে ভাড়া মেটাতে হবে। এই সুবিধা নিতে গেলে সাড়ে তিন শতাংশ বেশি অর্থ দিতে হবে এবং সেই সঙ্গে পরিষেবা করও দিতে হবে।

    ১৪ দিনের মধ্যে তৎকাল টিকিটের অর্থ দিতে না পারলে বিশাল পরিমাণ পেনাল্টি চার্জ করা হবে। এটা অন্তত বছরে ৩৬ শতাংশ। এমনকী, ইউজার অ্যাকাউন্টও ডিঅ্যাক্টিভেট করে দেওয়া হতে পারে।

    তৎকাল টিকিটে ভ্রমণকালে কী ধরনের আইডি প্রুফ লাগে?

    তৎকাল টিকিটে ভ্রমণকালে কী ধরনের আইডি প্রুফ লাগে?

    পাসপোর্ট, অথবা আধার কার্ড, ভোটার আইডি, ড্রাইভিং লাইসেন্স, প্যান কার্ড, ছবি সাঁটা রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যাঙ্কের পাসবই, ছবি সাঁটা ক্রেডিট কার্ড, কেন্দ্র বা রাজ্য সরকারের দেওয়া ফোটো আইডেন্টিটি কার্ড, ফোটো লাগানো স্টুডেন্ট আইনডেন্টিটি কার্ড, রাজ্য বা কেন্দ্রের অধীনস্থ পিএসইউ-এর ফোটো আই কার্ড, পুরসভা বা পঞ্চায়েতের দেওয়া ফোটো সাঁটা কোনও সার্টিফিকেট-- এগুলি আইডি প্রুফ হিসাবে দেখাতে পারেন।

    English summary
    One can thank Indian Railways enough for establishing its Tatkal train ticket booking scheme running since 1997, which underwent changes including booking timings in 2015.

    Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
    সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more