• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts
Oneindia App Download

'বাবা' হরভজন মন্ত্রেই জিতে এসেছিলেন আফ্রিকান সাফারি, বললেন শ্রীসন্থ

Google Oneindia Bengali News

হরভজন সিং এবং শ্রীসন্থ। ভারতীয় ক্রিকেটের দুই অদ্ভুত চরিত্র। দুজনে যেমন কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়ে দেশকে দিয়েছেন জোড়া বিশ্বকাপ , তেমন আবার আইপিএলের সেই চিত্র কোনও দিন কেউ ভুলবে না। হরভজন চড় কষিয়ে দেন শ্রীসন্থকে। তারপর সদা আবেগপ্রবণ শ্রীসন্থ হাপুস নয়নে কাঁদতে থাকেন। কিন্তু জানেন কী এই হরভজনই আবার শ্রীসন্থকে মনোবল জুগিয়েছিলেন বিদেশ সফরে গিয়ে। 'বাবা' হরভজনের মন্ত্রেই সেবার আফ্রিকান সাফারি দুরন্তভাবে শেষ করেছিলেন দক্ষিণী এই ফাস্ট বোলার।

 বাবা হরভজন মন্ত্রেই জিতে এসেছিলেন আফ্রিকান সাফারি, বললেন শ্রীসন্থ

গ্লেন লাইভ ফেস্টে একটি চ্যাট শো হচ্ছিল। সেখানে অতিথি হিসাবে হাজির হয়েছিলেন হরভজন সিং এবং শ্রীসন্থ। ক্রিকেট ধারাভাষ্যকার বিক্রম সাঠের সঙ্গে কথা বলার সময় দুই বোলার তাদের ক্যারিয়ারের গুরুত্বপূর্ণ পর্যায়ে তাঁরা কীভাবে কীভাবে একে অপরকে সাহায্য করতেন তা নিয়ে কথা বলছিলেন। আর সেই কথা বলতে গিয়েই শ্রীসন্থ বলেন সেই পেপ টকের গল্প, যা তাঁকে দক্ষিণ আফ্রিকায় সিংহ গর্জন থামিয়ে দিয়ে সাহায্য করেছিল। অথচ সিরিজের আগে বেশ চাপে ছিলেন দলে সবে থিতু হতে শুরু করা শ্রীসন্থ। তাও আবার দক্ষিণ আফ্রিকা সফর। বিদেশের মাটি। প্রথম এমন সফরে চাপ থাকেই। শ্রীসন্থ জানতেন দক্ষিণ আফ্রিকার পিচ পেস সহায়ক হয় কিন্তু সেখানে বল নিয়ন্ত্রণ করাই আসল ব্যপার। লেন্থ ঠিক রাখা খুব গুরুত্বপূর্ণ। অপরদিকে ব্যাট করবেন স্মিথ, গিবস, ক্যালিস, প্রিন্স, আমলার মতো ব্যাটসম্যানরা। তাঁদেরকে তাঁদের দেশে আটকানো বিশাল শক্ত কাজ। হরভজনের স্পেস্যাল মন্ত্রে সেটাই সম্ভব হয়েছিল।

ঘটনা ২০০৬ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের সময়ের। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের কাম ব্যাক সিরিজ হিসাবে যা অনেকেই মনে রেখেছেন। ওই সিরিজের আগে হরভজন শ্রীসন্থকে বেশ বিচলিত দেখেন এবং তিনি এগিয়ে আসেন সাহায্যের জন্য। ফাস্ট বোলারের কাঁধে হাত রেখে তাকে ভরসা জুগিয়েছিলেন। দিয়েছিলেন 'পেপটক' আর সেটাই শ্রীসন্থকে সিরিজে নিজেকে মেলে ধরতে দারুণ ভাবে সাহায্য করেছিল এবং ভারতের স্মরণীয় টেস্ট সিরিজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন তিনি। এশিয়ার প্রথম দেশ হিসাবে রাহুল দ্রাবিড়ের ভারত রামধনুর দেহে তাদের প্রথম টেস্ট জিতেছিল। সিরিজ না জিতলেও হেরেও আসেনি। সিরিজ ড্র করে ফিরেছিল ভারত।

শ্রীসন্থ ৩ টেস্টে ১৮ উইকেট নিয়েছিলেন এবং উইকেট শিকারীদের তালিকায় শীর্ষে ছিলেন। জোহানেসবার্গে ঐতিহাসিক টেস্টে ৫ উইকেট সহ শ্রীসন্থ ম্যাচে ৮ উইকেট নিয়েছিলেন। ভারত ওই ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ১২৩ রানে হারিয়েছিল।

কথা বলার সময়, শ্রীসন্থ প্রকাশ বলেন যে ২০০৬ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের সময় তিনি কিছুতেই নিজের উপর নিজে আস্থা রাখতে পারছিলেন না এবং হরভজন তা লক্ষ্য করেন। তিনি শ্রীসন্থকে জড়িয়ে ধরে বলেছিলেন, "শান্তে, এটা একটা মেক ওর ব্রেক সিরিজ - নিজের উপর বিশ্বাস রাখা শুরু কর।" আর এটাই ফিরিয়ে দেয় শ্রীসন্থে র আত্মবিশ্বাস।

প্রসঙ্গত হরভজন সিং এবং শ্রীসন্থের মধ্যে ২০০৮ সালের আইপিএল-এর কুখ্যাত চড় কাণ্ডের পরে তাদের সম্পর্কে দুরত্ব তৈরি হয়েছিল। তবে, এই দুই ক্রিকেটার, ২০০৭ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এবং ২০১১ বিশ্বকাপ জয়ী দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন। ২০০৮ এর সমস্যাকে পিছনে ফেলে মাঠের বাইরে তাঁরা ভালো বন্ধু হয়ে ওঠেন। ফল ২৮ বছর ভারতের একদিনের ক্রিকেটে বিশ্ব জয়।

English summary
apart from slap gate controversy harbhajan's pep talk helpes sreesanth to perform in south african soil
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X