• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

পাকিস্তান ম্যাচের পর মহম্মদ শামিকে কুরুচিকর আক্রমণেও বিরাটরা চুপ! গর্জে উঠলেন শেহওয়াগ

Google Oneindia Bengali News

ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটারের সমর্থনে বৈষম্যের প্রতিবাদে হাঁটু গেঁড়ে বার্তা দিয়েছিল ভারতীয় দল। অথচ ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের পর দলের সিনিয়র বোলার মহম্মদ শামিকে সোশ্যাল মিডিয়ায় যেভাবে কুরুচিকর, অশালীন আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছে তার প্রতিবাদ এখনও করার সময় হল না বিরাট কোহলি-সহ গোটা ভারতীয় দলের। এমনকী বিসিসিআইয়েরও। যদিও ব্যতিক্রম বীরেন্দ্র শেহওয়াগ। শামির হয়ে ব্যাট ধরে তিনি ব্যাট করলেন চেনা ভঙ্গিমাতেই।

মহম্মদ শামিকে কুরুচিকর আক্রমণেও বিরাটরা চুপ

গতকাল দুবাইয়ে পাকিস্তান ম্যাচে শামি প্রথম বল করতে আসেন দ্বিতীয় ওভারে। পঞ্চম বলে বাবর আজম একটি বাউন্ডারি মারেন, এই ওভারে শামি দেন ৮ রান । এরপর পঞ্চম ওভারে তিনি ১১ রান খরচ করেন। এই ওভারের তৃতীয় বলে বাবর ও পঞ্চম বলে মহম্মদ রিজওয়ান একটি করে চার মারেন। ১৬তম ওভারে ফের শামিকে আক্রমণে আনেন বিরাট কোহলি। তখন পাকিস্তান জয়ের গন্ধ পেতে শুরু করেছে। এই ওভারের প্রথম বলে রিজওয়ান একটি চার মারলেও বাকি পাঁচ বলে তিন রানের বেশি নিতে পারেনি পাকিস্তান। ৩ ওভারে ২২ রান দেওয়া শামির হাতে বিরাট ফের বল তুলে দেন ১৮তম ওভারে। এই ওভারের পাঁচ বলের মধ্যেই ১৭ রান তুলে নিয়ে ম্যাচ জিতে যান পাকিস্তান। শামির প্রথম বলে রিজওয়ান ছক্কা হাঁকানোর পরের দুই বলেও চার মারেন। চতুর্থ বলে ১ রান নেন। পঞ্চম বলে ২ রান নিয়ে পাকিস্তানের ঐতিহাসিক জয় নিশ্চিত করেন পাক অধিনায়ক বাবর আজম।

এরপরই সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র আক্রমণের শিকার হন শামি। তাঁর ধর্ম নিয়ে খোঁচা দিয়ে মা-সহ পরিবারের সদস্যদের সম্পর্কে অশালীন মন্তব্য আসতে থাকে নেটাগরিকদের কাছ থেকে। অনেকেই অবশ্য শামিকে এভাবে আক্রমণের তীব্র নিন্দা করেছেন। কেউ সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটারের সমর্থনে বৈষম্যের প্রতিবাদ জানিয়ে পাকিস্তান ম্যাচেই ভারতীয় দল হাঁটু গেঁড়ে বসে বার্তা দিয়েছিল। এখন শামিকে যেভাবে আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছে ভারতীয় দলেরও উচিত দৃষ্টান্তমূলকভাবে তার প্রতিবাদ করা। বিরাট কোহলিদের মোটেই চুপ থাকা উচিত নয়।

সরব হয়েছেন প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার বীরেন্দ্র শেহওয়াগ। তিনি টুইটারে লিখেছেন, মহম্মদ শামিকে যেভাবে অনলাইনে আক্রমণ করা হয়েছে তা শকিং! আমরা তাঁর পাশে রয়েছি। শামি একজন চ্যাম্পিয়ন। ভারতীয় দলের টুপি পরে যাঁরা দেশের প্রতিনিধিত্ব করেন তাঁদের হৃদয়জুড়ে দেশাত্মবোধ রয়েছে, অন্তত অনলাইনে যাঁরা এ সব লেখালিখি করেন তাঁদের চেয়ে অনেক বেশিই। শামি তোমার সঙ্গে রয়েছি! বীরু বার্তার শেষে শামির উদ্দেশে লিখেছেন, অগলে ম্যাচ মে দিখাদো জ্বলওয়া! এখানেই থেমে থাকেননি বীরু। তিনি টুইটে আরও লিখেছেন, দিওয়ালির সময় ভারতের নানা প্রান্তে আতসবাজি নিষিদ্ধ করা হয়। কিন্তু পাকিস্তানের জয় উদযাপনের জন্য এ দেশেই আতসবাজি ফাটানো হলো! কেউ বলতেই পারেন, এভাবে তাঁরা ক্রিকেটীয় জয়ের সেলিব্রেশনে মেতেছেন। তাহলে দিওয়ালির সময় আতসবাজির দোষটা কোথায়? এই দ্বিচারিতা কেন? সব জ্ঞানের কথা কি তখনই মাথায় আসে?

English summary
Online Attack On Mohammad Shami Is Shocking And We Stand By Him, Says Virender Sehwag. Shami Was Attacked On Social Media By Netizens After India's Defeat To Pakistan.
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X