• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

'কপিলের ওই একটা ক্যাচই ১৯৮৩ বিশ্বকাপ ফাইনালের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছিল'

তখনও ম্যাচের রাশ পুরোপুরি ভারতের হাতে আসেনি। ওয়েস্ট ইন্ডিজ দুই উইকেট হারালেও ক্রিজে তখন ব্যাট চালাচ্ছিলেন স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস। সেদিন টি-টোয়েন্টির মুডে ছিলেন ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি। তখন তাঁকে আউট করার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেছিল ভারতীয় ক্রিকেট দল। না হলে বিশ্বকাপ ফাইনালই হাত থেকে বেরিয়ে যেতে পারত। যদিও তা হয়নি। কারণ অল্প রানেই সাজঘরে ফিরেছিলেন ভিভ। ১৯৮৩-র বিশ্বকাপ জিতেছিল ভারত। ভিভের ক্যাচই ম্যাচ মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছিল বলে বিশ্বাস করেন সেই বিশ্বজয়ী ভারতীয় দলের অন্যতম সদস্য কীর্তি আজাদ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিধ্বংসী বোলিং

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিধ্বংসী বোলিং

৩৭ বছর আগের ২৫ জুন ঐতিহাসিক লর্ডসে হওয়া বিশ্বকাপের ফাইনালে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হয়েছিল ভারত। টসে জিতে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ক্লাইভ লয়েড শিবির। অ্যান্ডি রবার্টস, জোয়েল গার্নার, ম্যালকম মার্শাল, মাইকেল হোল্ডিংয়ের বিষাক্ত বোলিংয়ের সামনে সেভাবে টিকতেই পারেননি সুনীল গাভাসকররা। ১৮৩ রানে অল-আউট হয়ে গিয়েছিল ভারত। সর্বোচ্চ ৩৮ রান এসেছিল ওপেনার কৃষ্ণমাচারি শ্রীকান্তের ব্যাট থেকে।

ভারতের লড়াই

ভারতের লড়াই

সেদিন যেন ভারতীয় বোলারদের শরীরে অন্য কিছু ভর করেছিল। যারা ভেবেছিলেন ১৮৩-র লক্ষ্য সহজেই পেরিয়ে যাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, তাঁদের রীতিমতো অবাক করে দিয়েছিলেন কপিল দেব, বলবিন্দর সান্ধু, মদনলাল, রজার বিনি এবং মহিন্দর অমরনাথ সম্বৃদ্ধ ভারতের বোলিং আক্রমণ। ৩টি করে উইকেট নিয়েছিলেন মদনলাল ও অমরনাথ। ২ উইকেট নিয়েছিলেন সান্ধু। স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস (৩৩) ছাড়া কোনও ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যানই সেভাবে মাথা তুলে দাঁড়াতে পারেননি। ১৪০ রানে শেষ হয়ে গিয়েছিল ক্লাইভ লয়েডদের ইনিংস।

ভিভের ক্যাচ

ভিভের ক্যাচ

ভারতের দেওয়া ১৮৪ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৫ রানেই ওপেনার স্যার গর্ডন গ্রিনিজকে হারিয়ে ফেলেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এরপরেই ক্রিজে এসে রীতিমতো তাণ্ডব শুরু করেছিলেন স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস। টি-টোয়েন্টির মেজাজে ব্যাট করছিলেন ফেলেছিলেন ক্যারিবিয়ান। দলের অপর ওপেনার ডেসমন্ড হাইন্সের সঙ্গে তাঁর ৪৫ রানের পার্টনারশিপ হয়ে গিয়েছিল। ৫০ রানের রানের মাথায় হাইন্স আউট হলেও বিপজ্জনক ভিভ তখনও ব্যাট করছিলেন। সঙ্গে সঙ্গে ভারতীয়দের স্নায়ুর চাপও বাড়ছিল।

মদন-কপিল জুটিতে কামাল

মদন-কপিল জুটিতে কামাল

স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডসের উইকেট পেতে মরিয়া ছিল ভারতীয় ক্রিকেট দল। উইকেটের খোঁজে বোলিং পরিবর্তন করেছিলেন কপিল দেব। মিডিয়াম ফাস্ট মদনলালের হাতে বল তুলে দিয়েছিলেন ভারত অধিনায়ক। সেই সিদ্ধান্ত খেটেও গিয়েছিল। মদনলালের স্লোয়ার পড়তে ভুল করেছিলেন ভিভ। তুলে মারতে গিয়ে মিসড টাইমড হয়েছিল তাঁর। বল উঠেছিল অনেকটা ওপরে। পিছনের দিকে দৌড়ে দুর্দান্ত দক্ষতায় বিশ্বমানের ক্যাচ নিয়েছিলেন হরিয়ানা হ্যারিকেন। ২৮ বলে ৩৩ রান করে সাজঘরে ফিরেছিলেন স্যার ভিভ। ওই ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছিল বলে মনে করেন সেই দলেরই অন্যতম সদস্য কীর্তি আজাদ। মনে করে গোটা দেশ।

ভারতের বিশ্বকাপ জয়ের ৩৭ বছর: কপিলকে সর্বকালীন সেরা ম্যাচ উইনার বললেন গাভাসকর

English summary
Kirti Azad speaks about the turning point of 1983 World Cup final
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X