নব্য বাংলা সিনেমার সেরা ১০টি 'হট সিন' যা রীতিমতো নাম করেছে, দেখুন ভিডিও

Subscribe to Oneindia News

'হট সিন' শব্দটা শুনলেই অনেক কল্প রচিত হয়ে যায় মনের মধ্যে। নিয়ন্ত্রণবাদীরা বলেন শব্দটা বড়ই অশ্লীল। কিন্তু যারা উদারবাদী তাঁদের এমন শব্দ কিছু এসে যায় না। তবে একটা কথা বলতে হয় শ্লীল বা অশ্লীল-এর বেড়াটাকে দূরে সরিয়ে রাখলে দেখা যাবে বাংলা সিনেমায় সাহসী দৃশ্যের সংযোজন আজকের বিষয় নয় এর চল বহু পুরনো। 

শিল্প-সাহিত্যের যেখানেই মানুষ-মানুষীর সম্পর্ক গল্পের সুতোয় তান বেঁধেছে সেখানেই বারবার অবতারনা ঘটেছে শারীরিক সম্পর্কের। সিনেমাটিক প্ল্যাটফর্মে যখন এমন সব দৃশ্য দৃশ্যায়িত হয়েছে তখন তা বিকিয়েছে 'হট-সিন' শব্দে আধারে। নব্য বাংলা কিছু ছবিতে এমন কিছু 'হট-সিন' সম্প্রতি আলোচনায় এসেছিল। তেমনকিছু ছবি- রইল আপনাদের জন্য। দেখে নিন ভিডিও--

'হট সিন'-এ শ্রীলেখা মিত্র

জিজিবাসা নামে এই ছবির একটি উত্তেজক দৃশ্যে অভিনয় করেছিলেন শ্রীলেখা মিত্র। অর্থের বিনিময়ে এক জনের স্ত্রী সাজার অভিনয় করছিলেন তিনি। ওই ব্যক্তির সঙ্গে তিনি শ্বশুরবাড়িতেও আসেন। আর সেখানেই নকল স্বামীর সঙ্গে রাত কাটানোর সময় ঘটে যায় অঘটন।

পামেলা মণ্ডল ও সাগ্নিক

সম্পর্ক নামে একটি ছবি এই জুটি-র উত্তেজক দৃশ্য রীতিমতো ভাইরাল হয়েছিল একটা সময়।

তিনপাত্তি

ত্রিকোণ সম্পর্কের এই ছবিতে অভিনয় করেছিলেন ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত, পুজা বসু এবং ঋত্বিক চক্রবর্তী। এই ছবিতে ইন্দ্রনীল ও পুজার একটি উত্তেজক দৃশ্য একটা সময় ভালরকম আলোচনায় এসেছিল।

ওরা তিনজন

অশোক বিশ্বনাথন পরিচালিত এই ছবিটি সমালোচকদের প্রশংসায় কুড়িয়েছিল। এই ছবির বেশ কয়েকটি সাহসী দৃশ্য ক্যামেরাবন্দি হয়েছিল। জুন মালিয়া ও দেবদূত ঘোষ অভিনীত একটি উত্তেজক দৃশ্য নজরও কেড়েছিল।

গান্ধর্বী

এই ছবিতে অভিনয় করেছিলেন দেবশ্রী রায় ও কুণাল। নববিবাহিত দেবশ্রীর সঙ্গে এক শয্যা দৃশ্যে অভিনয় করেছিলেন কুণাল।

আমি আমার গার্লফ্রেন্ডস

এই ছবিতে অভিনয় করেছিলেন রাইমা, স্বস্তিকা ও সায়নী। এতে বেশকিছু সাহসী দৃশ্য ও ডায়লগ ছিল। যা নিয়ে হইচইও হয়। একটি দৃশ্যে ক্যামেরার সামনেই পোশাক বদলানোর অভিনয় করেছিলেন স্বস্তিকা।

চারুলতা ২০১১

এই ছবিতে ঋতুপর্ণা এতটাই সাহসী হয়ে উঠেছিলেন যে বিতর্ক কম হয়নি। কারণ ছবির কাহিনি যতটা না জনপ্রিয় হয়েছিল তার থেকে বেশি হট-সাবজেক্ট ছিল ঋতুপর্ণার উত্তেজক সব দৃশ্য।

আরোহণ

এতে বৃষ্টিভেজা রাতে ঋতুপর্ণা ও সমদর্শী অভিনীত একটি দৃশ্য জনপ্রিয় হয়েছিল।

চোখের বালি

রবীন্দ্রনাথের এই উপন্যাস জুড়েই মানুষ ও মানুষীর মধ্যেকার প্রেম-ভালোবাসার-শারীরিক আকাঙ্খার ওঠা-নামা। ঋতুপর্ণ ঘোষ ২০০৩ সালে এই উপন্যাসটিকে নতুন করে সিনেমাটিক ফর্মে নিয়ে আসেন। যাতে অভিনয় করেছিলেন প্রসেনজিৎ, ঐশ্বর্য, রাইমা এবং টোটা। ছবির মধ্যে প্রসেনজিৎ ও ঐশ্বর্য অভিনীত বেশকিছু সাহসী দৃশ্য সেসসময় বাহবা কুড়িয়েছিল।

আমি আমার গার্লফ্রেন্ডস

এই ছবিটি তিন তরুণীর জীবন নিয়ে। তাঁরা কী ভাবে জীবনটাকে উপভোগ করছে? কী ভাবে সামাজিক সম্পর্ক এবং বিধিনিষেধকে তুড়ি মেরে ওড়াচ্ছে ? এই নিয়ে ছবির কাহিনি দানা বেঁধেছে।

English summary
Hot scene in Bengali new age cinema is not the very new thing. It is age old trend of Bengali Cinema.

Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.