দীপিকার নাক কেটে দেওয়ার হুমকি দিলেন গেরুয়া শিবিরের এই নেতা

  • Posted By:
Subscribe to Oneindia News

দীপিকা পাড়ুকোন, শাহিদ কাপুর ও রণবীর সিং অভিনীত 'পদ্মাবতী'-র মুক্তি রুখতে ,শ্রী রাজপুত কার্নি সেনা ক্রমাগত বিক্ষোভ দেখিয়ে চলেছে দেশজুড়ে। ইতিমধ্যেই বিক্ষোভের আঁচ রাজস্থান থেকে, ঝাড়খণ্ড, মহারাষ্ট্র, গুজরাত, হয়ে বেঙ্গালুরু পর্যন্ত ছড়িয়েছে। কোটাতে ভাঙচুর করা হয়েছে একটি মলের প্রেক্ষাগৃহ। এর আগে , ছবির শ্যুটিং এর সময় থেকে পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালীকে মারধর করে , সেট ভাঙচুরও করে তারা। আর এবার ছবির অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোনকে নিশানায় নিয়ে আসল কার্নি সেনা।

দীপিকার নাক কেটে দেওয়ার হুমকি দিলেন গেরুয়া শিবিরের এই নেতা

[আরও পড়ুন:'পদ্মাবতী'-তে এই বিশেষ দৃশ্যে অভিনয়ের সময়ে কেন অস্বস্তি হয়েছিল দিপীকার, জানালেন]

রাজপুত কার্নি সেনার প্রেসিডেন্ট মাহিপাল সিং মাকরানা, স্পষ্ট ভাষায় জানিয়েছেন, যে রামায়ণের সুর্পনখার মতো করে দীপিকা পাড়ুকোনের নাক কাটতেও তাঁরা পিছপা হবেন না। উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই দিপীকা পাড়ুকোন এই বিক্ষোভকারীদের একহাত নিয়ে জানান, 'পদ্মাবতী'-কে মুক্তি হওয়া থেকে কেউ রুখতে পারবেন না। পাশাপাশি তিনি আরও বলেন যে, 'দেশ হিসাবে আমরা পিছিয়ে যাচ্ছি'। আর দিপীকার এই বক্তব্যেই ক্ষোভে ফেটে পড়েছে কার্নি সেনা।

[আরও পড়ুন:চিতোরগড়ের এই জায়গাতেই পদ্মিনীকে দেখেছিলেন খিলজি , জানুন 'পদ্মিনীমহল' ঘিরে আজানা তথ্য]

উল্লেখ্য, 'পদ্মাবতী' ছবিতে আলাউদ্দিন খিলজি ও রাজপুত রানি পদ্মিনীর একটি ড্রিম সিকোয়েন্স-এর দৃশ্য রাখা হয়েছে। যা নিয়েই আপত্তি তুলেছে কার্নিস সেনা তথা রাজস্থানের মেওয়ারের রাজপরিবার। তাঁদের দাবি তাঁরা কোনও মতেই তাঁদের রানির অপমান সহ্য করবেন না, এবং এই ধরনের দৃশ্য যাতে ছবিতেও না প্রতিস্থাপিত হয়।

English summary
After physically assaulting Padmavati director Sanjay Leela Bhansali, the Shri Rajput Karni Sena has threatened the film's heroine, Deepika Padukone. Mahipal Singh Makrana, president of Rajasthan unit of the outfit, said that they would not hesitate to chop Deepika's nose like Shurpanakha

Oneindia - এর ব্রেকিং নিউজের জন্য
সারাদিন ব্যাপী চটজলদি নিউজ আপডেট পান.

We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more