• search
For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS  
For Daily Alerts

(ছবি) 'আমি ছোটবেলায় মেয়েলি ছিলাম,শ্রীদেবীর মতো নাচতাম', অকপট স্বীকারোক্তি করন জোহরের

জয়পুর, ২২ জানুয়ারি : চোখে মুখে কোনও অস্বস্তির ছাপ নেই। খোলাখুলি, স্বমহিমায় পরিচালক করন জোহর নিজের জীবনমূলক বই 'দ্য আলস্যুটেবল বয়' নিয়ে আলোচনা করলেন প্রায় ৪০ মিনিট। ছোটবেলায় তার মেয়েলি চালচলনের জন্য কতটা অস্বস্তিতে দিন কাটাতে হয়েছে করনকে তা জানিয়ে দিলেন সাবলীল ভাবেই। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বইয়ের লেখিকা পুনম সাক্সেনা। সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন লেখিকা শোভা দে। [(ভিডিও) ভারতের প্রথম 'লেসবিয়ান' বিজ্ঞাপন দাপিয়ে বেড়াচ্ছে সোস্যাল মিডিয়া!]

অনুষ্ঠানের শুরুতে কোনও প্রশ্ন ছুঁড়ে না দিয়ে সঞ্চালক শোভা দে করনতে বললেন খোলা মনে যা ইচ্ছে হয় তাই বলতে। নিজের বক্তব্যে নিরাশ করেননি করন। দক্ষিণ বম্বেতে একাকী শৈশব কাটানো, পরিবারে দুঃসময় থেকে শুরু করে বলিউড ছবিতে সমকামিতা বা এলজিবিটি সম্প্রদায়কে তুলে ধরা, সব কিছু নিয়ে সতঃস্ফূর্তভাবে বলতে থাকলেন বলিউডের এই তারকা পরিচালক।[(ছবি) বলিউড তারকাদের মজাদার সব ডাকনাম!]

এদিনের অনুষ্ঠানে করনের বলা ১০টি সেরা উক্তি বা কিছু কিছু ক্ষেত্রে স্বীকারোক্তি।

শৈশবের দুঃস্বপ্ন

শৈশবের দুঃস্বপ্ন

"ছোটবেলায় 'প্যানসি' (যার অর্থ স্বকামী পুরুষ বা মেয়েলি) শব্দটাকে আমি ঘৃণা করতাম। আমাকে ছোটবেলায় এই নামে বারবার ডাকা হত। আমি ছোটবেলায় মেয়েলি ছিলাম, আমি বুঝতে পারতাম না আমার হাত- পা নিয়ে ঠিক কী করব। অন্য বাচ্চাদের থেকে অনেকটাই আলাদা ছিলাম আমি। শুধু আমার সাপোর্ট সিস্টেম ছিল বাবা-মা। আমার ওজন যখন ১৫০ কেজি ছিল তখন মা বলতেন, আমি পৃথিবীতে সবচেয়ে সুন্দর দেখতে। একবার আমি যখন সিকিভাগ ওজন ঝরিয়েছিলাম, বাবা বলেছিলেন, হিন্দি ছবিতে এবার আমি নায়ক হওয়ার জন্য যোগ্য।"

দক্ষিণ বম্বের বাড়িতে বেড়ে ওঠা

দক্ষিণ বম্বের বাড়িতে বেড়ে ওঠা

"কেউ জানে না আমি সিনেমার গানের সঙ্গে লুকিয়ে লুকিয়ে নাচতাম। আর আমি কী পরিমানে হিন্দি সিনেমার জন্য পাগল ছিলাম। আমার প্রতিবেশী বন্ধুদের সবাইকে বলেছিলাম আমার বাবা ব্যবসায়ী, কিন্তু আসলে যে তিনি প্রযোজক তা বলিনি কখনও।"

দুঃসময়

দুঃসময়

"আমার বাবা কয়েকটি ফ্লপ ছবি দেওয়ার পর, আমাদের গয়না. বাড়ি বিক্রি করতে হয়েছিল। কোনও অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ পেতেন না, কোনও ছবির লঞ্চ অনুষ্ঠানেও ডাকা হত না তাঁকে। খুব খারাপ সময়ের মধ্যে কাটছিল আমাদের।"

শ্রীদেবীর মতো নাচতাম

শ্রীদেবীর মতো নাচতাম

"আমি শ্রীদেবী এবং জয়া প্রদার অণুকরণ করে নাচতাম। যখন বাড়িতে অতিথি আসত, তখন বাবা আমায় ডাফলিওয়ালে গানের সঙ্গে নাচ দেখাতে বলতেন। আমি ডাফলি পাশে রেখে ভাবতাম আমি জয়াপ্রদা। তারপর তার নাচ অনুকরণ করে নাচতাম।"

শাহরুখ খান

শাহরুখ খান

"আমি একথা অস্বীকার করছি না যে জীবনে অনেক চড়াই-উতরাই থাকে। কিন্তু সেটা সব সম্পর্কেরই অংশ। কিন্তু শাহরুখ খান, গৌরি খান এবং ওদের ছেলেমেয়েরা আমার পরিবারের অংশ। ওরা আমার জীবনে একটা বড় জায়গা জুড়ে রয়েছে।"

ফিল্মি দুনিয়া

ফিল্মি দুনিয়া

"বহু কৃত্রিম বাস্তব রয়েছে এখানে। ছবি নির্মাতাদের মধ্যে সেই উষ্ণতাটার অভাব রয়েছে। এখানে প্রতিযোগিতাটা কট্টর। এখানে ভ্রাতৃত্ব বা সহধর্মিতার কোনও জায়গা নেই। ব্যর্থতাকে এখানে ভাল চোখে নেওয়া হয়না।"

পরিচালকদের সঙ্গে প্রতিযোগিতা

পরিচালকদের সঙ্গে প্রতিযোগিতা

"আমার বয়স ৪৩। আমি এখন আর কারোর সঙ্গে লড়াই করতে চাই না। সত্যিকথা বলতে আমি এমন পরিচালক খুঁজছি যার সঙ্গে ঝগড়া করতে পারি। আমার কোনও প্রেমিকা নেই, আমার কোনও সম্পর্ক বহির্ভূত সম্পর্ক নেই, শো অফ করার জন্য কোনও সন্তানও নেই। আমি শুধু কেলেঙ্কারির অপেক্ষায় রয়েছি।"

ছবিতে সমকামিতা

ছবিতে সমকামিতা

"আমার মনে হয় এই ইস্যুটাকে আমিই মূলধারার ছবিতে এনেছি। সিনেমায় কিছু কিছু ক্ষেত্রে হাস্যরসকে আমরা ক্র্যাচ হিসাবে ব্যবহৃত করি যাতে বিষয়টি বৃহত্তর দর্শকের কাছে পৌঁছে দেওয়া যেতে পারে। এলজিবিটি নিয়ে এখন অনেক ছবি রয়েছে, আর আমি গর্বিত যে বলটা প্রথম আমিই গড়িয়েছিলাম।"

নিজের বানানো প্রিয়-অপ্রিয় ছবি

নিজের বানানো প্রিয়-অপ্রিয় ছবি

"আমার সবচেয়ে পছন্দের ছবি কভি আলভিদা না কহেনা। যে ছবিগুলি আমি বানিয়েছি তার মধ্যে সবচেয়ে কম পছন্দ স্টুডেন্ট অফ দ্য ইয়ার। তবে এই ছবি বলিউডকে ৩ জন তারকা অভিনেতা দিয়েছে।"

বলিউড সমকামীদের জন্য রুদ্ধদ্বার

বলিউড সমকামীদের জন্য রুদ্ধদ্বার

"ঠিক আছে যদি তারা কুঠুরীর মধ্যেই থেকে যায়। আমাদের দেশের আইন এমনই যে তারা বেরিয়ে আসতে চাইলে তাদের ৩৭৭ বার অত্যাচার করা হবে।"

English summary
Karan Johar: I was effeminate as a child, Karan Johar was effeminate as a child
For Daily Alerts
চটজলদি খবরের আপডেট পান
Enable
x
Notification Settings X
Time Settings
Done
Clear Notification X
Do you want to clear all the notifications from your inbox?
Settings X
We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Oneindia sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Oneindia website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more