বিজেপিই কেলেঙ্কারির মূলে! মালিয়ার বিস্ফোরক স্বীকারোক্তির পর তোপ রাহুল শিবিরের


এদিন বিজয় মালিয়া বলেন, দেশত্যাগ করার আগে তিনি অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলিকে সবকিছু জানিয়েছিলেন। তাঁর এই বিস্ফোরক স্বীকারোক্তির পর জাতীয় রাজনীতি তোলপাড় হয়ে ওঠে। কংগ্রেস জানায়, এতদিন তারা যে দাবি করে আসছিল, তার মধ্যে কেনও মিথ্যা ছিল না, তা আজ প্রমাণ হয়ে গেল।

কংগ্রেস সাংসদ অভিষেক মনু সিংভি বলেন, কংগ্রেস ১৮ মাস ধরে এই দাবি করে আসছে। শুধু বিজয় মালিয়াই নন, নীরব মোদী ও অন্যান্যরাও বিজেপিকে জানিয়ে দেশত্যাগ করেছে। বিজেপি সরকার সবই জানে। কংগ্রেস সাংসদ অভিষেক মনু সিংভি ছাড়াও বিজয় মালিয়ার বিস্ফোরক মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে গর্জে ওঠেন সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক।

সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি বলেন, এটাই ঘটনা যে, এই সবই কেন্দ্রীয় সরকারের জ্ঞাতসারেই হয়েছে। বিজয় মালিয়া ও অন্যান্যরাও বিজেপিকে জানিয়েই দেশ ছেড়েছে। পরিকল্পনা করেই ব্যাঙ্ক-লুঠের পর দেশত্যাগ করেছেন ওরা। সবকিছু হয়েছে বিজেপিকে জানিয়েই।

[আরও পড়ুন:'দেশ ছাড়ার আগে অরুণ জেটলিকে সবকিছু জানিয়েছিলাম', লন্ডনে দাঁড়িয়ে বিস্ফোরক দাবি বিজয় মালিয়ার]

উল্লেখ্য, এবারই লন্ডন সফরে গিয়ে সাংবাদিকদের বলেছিলেন, লিকার ব্যারন বিজয় মালিয়া দেশত্যাগ করার আগে বিজেপি নেতাদের সঙ্গে দেখা করেছিলেন। কিন্তু আমি নাম বলব না সেই নেতার। তবে এবার সেই নাম প্রকাশ পেল খোদ মালিয়ার মুখেই। এরপরই তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে দিল্লির রাজনীতিতে। যদিও বিজেপি তথা অরুণ জেটলি সমস্ত কিছুই অস্বীকার করেন।

[আরও পড়ুন: বিজয় মালিয়া ইস্যুতে মুখ খুললেন অরুণ জেটলি, কী বললেন তিনি]

উল্লেখ্য, ৯০০০ কোটি টাকা ব্যাঙ্ক ঋণ নিয়ে কিংপিশার কর্ণধার বিজয় মালিয়া দেশ ছেড়ে বিদেশে পাড়ি দেন। সেই থেকে তিনি ইংল্যান্ডেই রয়েছেন। লন্ডনের কাছে তাঁকে প্রত্যার্পণের আর্জি জানিয়েছে সিবিআই। কিন্তু লন্ডন আদালত তা খারিজ করে দিয়েছে। এদিকে ১৩৫০০ কোটি টাকা পিএনবি কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্ত নীরব মোদী ও মেহুল চোকসিও পলাতক। তা নিয়েও তোপ দাগেন রাহুল গান্ধী।

[আরও পড়ুন: পেট্রোল-টাকার খোঁচার মাঝে খানিক স্বস্তি কেন্দ্রের, ১০ মাসে সর্বনিম্ন হল খুচরো মুদ্রাস্ফীতির হার]

Have a great day!
Read more...

English Summary

Congress reacts on Vijay Malya’s speech that BJP had all known. BJP had known who looted public money,