Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

ট্রাফিক সেজে গাড়ি থামাচ্ছে যুবক, বাধা দিতেই সজোরে ঘুষি পুলিশকর্মীর মুখে

রাস্তার মাঝখানে দাঁড়িয়ে এক ব্যক্তি গাড়ি আটকে দিচ্ছিল। তা দেখতে পেয়ে ছুটে গিয়েছিলেন ট্রাফিক পুলিশকর্মী। ওই ব্যক্তিকে বাধা দিতেই সজোরে এক ঘুষি ট্রাফিক পুলিশ কর্মীরা মুখে।

Subscribe to Oneindia News

কোচবিহার, ২১ মার্চ : রাস্তার মাঝখানে দাঁড়িয়ে এক ব্যক্তি গাড়ি আটকে দিচ্ছিল। তৈরি হচ্ছিল যানজট। তা দেখতে পেয়ে ছুটে গিয়েছিলেন ট্রাফিক পুলিশকর্মী। ওই ব্যক্তিকে বাধা দিতেই সজোরে এক ঘুষি ট্রাফিক পুলিশ কর্মীরা মুখে। হতভম্ব হয়ে পড়েছিলেন ওই পুলিশকর্মী। সঙ্গে সঙ্গে অন্য পুলিশ কর্মীরা ছুটে আসেন, আটক করেন আক্রমণকারীকে। চাঞ্চল্যকর এই কাণ্ড কোচবিহারের স্টেশন সংলগ্ন চৌপথি এলাকায়।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, আক্রান্ত পুলিশ কর্মীর নাম মনোজ দাস। এই ট্রাফিক কনস্টেবল কোচবিহারে চৌপথি এলাকায় কর্তব্যরত ছিলেন। কাজ করছিলেন ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণের। তখনই উল্টোদিকে অভিযুক্ত ব্যক্তি রাস্তার মাঝখানে গাড়ি আটকে বিপত্তি বাড়াচ্ছিলেন। তাই বাধা দেন পুলিশকর্মী। কিন্তু বাধা দিয়ে যে ঘুষি খেতে হবে বুঝে উঠতে পারেননি তিনি।

ট্রাফিক সেজে গাড়ি থামাচ্ছে যুবক, বাধা দিতেই সজোরে ঘুষি পুলিশকর্মীর মুখে

শুধু ঘুষিই নয়, কিল-চড়ও মারতে দেখা যায় উত্তেজিত ওই ব্যক্তিকে। পুলিশ জানিয়েছেন ওই ব্যক্তির নাম সুদর্শন দেবনাথ। কর্তব্যরত পুলিশ কর্মীর গায়ে হাত তোলার জন্য সুদর্শনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। থানায় নিয়ে গিয়ে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করবে অভিযুক্তকে।

কী কারণে সে গাড়ি থামাচ্ছিল রাস্তার মাঝখানে দাঁড়িয়ে? আর কেনই বা ট্রাফিক পুলিশকর্মীকে সে ঘুষি মারল?
কেন রাস্তার মাঝখান থেকে সরে যেতে বলতেই তিনি ক্ষেপে গেলেন? চড়াও হলেন পুলিশকর্মীর উপর? অভিযুক্ত সুদর্শনের দাবি, আগে পুলিশকর্মীই তাকে মারধর করে, তারপর সে ঘুষি চালায়।

English summary
In the guise of traffic a young man stopping cars, protesting this police face oner.
Please Wait while comments are loading...