Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

জালনোট পাচারের করিডোর ছিল মালদহ, এখন হাওড়াতেই নকল দু’হাজারের ছাপাখানা!

Subscribe to Oneindia News

কলকাতা, ৩ মার্চ : এতদিন মালদহ ছিলই ভারতে জালনোট পাচার চক্রের করিডোর। মালদহের নিরাপত্তা ব্যবস্থার ঢিলেমিকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশ থেকে জালনোট পাচারকারীরা ভারতে ছড়িয়ে দিল জাল নোট। বিগত এক মাসের মধ্যেই অন্তত চারটি ক্ষেত্রে নতুন দু'হাজার টাকার জাল নোট নিয়ে ধরা পড়েছে পাচারকারীরা। এবার কলকাতার উপকণ্ঠেই এই জাল নোটের কারবারের রমরমায় উদ্বেগ ছড়ালো রাজ্যে। সিআইডি তদন্তে নেমে জানতে পেরেছে হাওড়ার বাউড়িয়ায় ছাপানো হত নতুন দু'হাজার টাকার জাল নোট![ভাগ্নের বোর্ড গেমের খেলনা টাকা এসবিআই এটিএম-এ ঢুকিয়েছিলাম, স্বীকারোক্তি অভিযুক্তর!]

বৃহস্পতিবার কলকাতার ফ্যান্সি মার্কেট থেকে ধরা পড়ে পাঁচ জাল নোট কারবারি। তারা ওই মার্কেটে মোবাইল কিনতে গিয়েছিল। আর জাল নোটে পেমেন্ট করেই পুলিশের জালে ধরা পড়ে যায়। কলকাতার অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম) বিশাল গর্গ জানিয়েছিলেন, প্রাথমিক জেরায় পুলিশ জানতে পেরেছে, ওই জাল নোট ছাপানো হত এ রাজ্যেই। বৃহস্পতিবারই দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করে পাঁচ ধৃতের কাছ থেকে চাঞ্চল্যকর তথ্য পায় পুলিশ।[ভারতে জালনোট ছড়াতে মালদহকেই করিডোর করেছে আইএসআই, সতর্ক গোয়েন্দারা]

জালনোট পাচারের করিডোর ছিল মালদহ, এখন হাওড়াতেই নকল দু’হাজারের ছাপাখানা!

সিআইডিকে দায়িত্ব দেওয়া হয় এই জাল নোট তদন্তের। ধৃতদের জেরায় উঠে আসে হাওড়ার বাউড়িয়ার ছাপাখানার নাম। সেখানেই ছাপানো হত ওই জাল নোট। স্ক্যান করে অফসেট প্রিন্টিংয়ে ছাপানো হত দু'হাজারের নকল টাকা। তবে এই টাকার কাগজ ছিল বেশ অনুন্নতমানের। ধৃতদের মধ্যে তিনজন উলুবেড়িয়ার, একজন ডোমজুড়ের আর অন্যজন বাঁকুড়ার বাসিন্দা।[দু হাজারের জাল নোটে ৫৭ লক্ষ টাকা উদ্ধার, ছাপা হয়েছে রাজ্যেই,স্টিকার লাগানো এসবিআইয়ের, ধৃত ৫]

ধৃতদের এদিনই আদালতে পেশ করা হয়েছে। পুলিশ ধৃতদের নিজেদের হেফাজতে নিয়ে ওই ছাপাখানায় হানা দিতে চায়। এই চক্র আর কারা যুক্ত রয়েছে, তাও জানার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। এই জালনোটের কারবারিদের সঙ্গে মালদহের জালনোট পাচারকারী কিংবা বাংলাদেশ বা আইএসআই চরের কোনও যোগ রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। উল্লেখ্য, গতকাল ফ্যান্সি মার্কেটে ধৃতদের কাছ থেকে উদ্ধার হয় দু'হাজারের নোটে ৫৬ লক্ষ ৭৪ হাজার টাকার জালনোট।[নোট বাতিলের ১০০ দিনের মধ্যে বাংলার এই জেলা হয়ে উঠেছে 'জাল নোটের হাব'!]

English summary
Malda was corridor of trafficking fake currency, now two thousand fake note is printing at Howrah!
Please Wait while comments are loading...