Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

রাখ-ঢাক শেষ, নেতাজি মৃত্যু রহস্যে যবনিকা টানল কেন্দ্র, ক্ষোভ বসু পরিবারের

Subscribe to Oneindia News

নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু সম্পর্কীয় এক প্রশ্নের প্রেক্ষিতে কিছুদিন আগেই কেন্দ্র জানিয়েছে ১৯৪৫ সালের ১৮ অগাস্ট মারা যান নেতাজি। এক RTI প্রশ্নের উত্তরে নেতাজি মৃত্যু রহস্য নিয়ে, বিজেপি শাসিত কেন্দ্রীয় সরকারের তরফের এই উত্তরকে মেনে নিতে রাজি নয় নেতাজির পরিবার।

বসু পরিবারের দাবি গোটা বিষয়টিতে সিট -এর তদন্ত বসানো হোক। প্রসঙ্গত, সায়ক সেন নামে এক ব্যক্তি নেতাজি বেঁচে আছেন কী না এবং ১৯৪৫ সালের ১৮ অগাস্টের পর তিনি কোথায় ছিলেন সেই প্রশ্ন নিয়ে RTI এর দ্বারস্থ হন।

যার উত্তরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জানিয়েছে, মন্ত্রক জানায়, শাহনাওয়াজ কমিটি, বিচারপতি জিডি খোসলা কমিশন এবং বিচারপতি মুখোপাধ্যায় কমিশন অফ এনক্যোয়ারির রিপোর্ট খতিয়ে দেখে সরকার এই সিদ্ধান্তে এসেছে যে নেতাজি ১৯৪৫ সালের ১৮ অগাস্ট মারা যান।

নেতাজির মৃত্যু নিয়ে কেন্দ্রের উত্তরে ক্ষুব্ধ বসু পরিবারের বিজেপি সদস্য

শুধু তাই নয় মুখার্জী কমিশনের রিপোর্টের ১১৪ ও ১১২ নম্বর পাতায় যে গুমনামী বাবা বা ভগবানজীর উল্লেখ রয়েছে, তাঁরাও কেউ নেতাজি নন বলে দাবি করেছে কেন্দ্র।

এদিকে নেতাজির পরিবারের সদস্য তথা পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির অন্যতম কর্মী চন্দ্র বোস কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। তিনি বলেন ,'এটা দায়িত্বজ্ঞানহীন পদক্ষেপ...নির্দ্দিষ্ট প্রমাণ ছাড়া কীভাবে একটা সরকার নেতাজি মৃত্যু রহস্য নিয়ে কোনও সিদ্ধান্তে উপনীত হতে পারে?' তাঁর দাবি ,নেতাজির অন্তর্ধান রহস্যের উন্মোচনের জন্য একটি বিশেষ তদন্তকারী দল (সিট) গঠন করা উচিত। পাশাপাশি তাঁর আরও দাবি যে, সুভাষ চন্দ্র বসুকে নিয়ে কেন্দ্র যে ' ডি ক্লাসিফায়েড' ফাইলগুলি প্রকাশ করেছে, তাও খতিয়ে দেখা হোক।

English summary
There are few controversies that have continued to be part of discussions in India, as much as those surrounding Subhash Chandra Bose's death. The real timing and cause of his demise have been shrouded in mystery ever since it was reported to have occurred in 1945.
Please Wait while comments are loading...