Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

হাসপাতালকে হোটেল বানিয়েছেন সুদীপ! কত টাকা খরচ করেছেন, জানলে চোখ কপালে উঠবে

Subscribe to Oneindia News

নামেই হাসপাতালে রয়েছেন রোজভ্যালিকাণ্ডে ধৃত তৃণমূল সাংসদ তথা তৃণমূলের লোকসভা দলনেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। অভিযোগ, অসুস্থতার ভান করে তিনি হাসপাতালে রয়েছেন বিলাসবহুল জীবনযাপনের জন্য। তিনি যে নেহাতই অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নন, তা প্রমাণ-সহ তুলে ধরেন সিবিআইআয়ের আইনজীবীরা। কটক হাইকোর্টে বিচারপতির কাছে নথি পেশ করে সিবিআই-এর আইনজীবী কে রাঘবেন্দ্র দাবি করেন, সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় অসুস্থ নন, এই অসুস্থতা তাঁর বাহানা।

এদিন সুদীপের জামিন মামলার শুনানির আগে ভুবনেশ্বরের অ্যাপোলো হাসপাতাল থেকে বিস্তারিত রিপোর্ট সংগ্রহ করে সিবিআই। উল্লেখ্য, ভুবনেশ্বরের অ্যাপোলো হাসপাতালে দীর্ঘ তিনমাস ভর্তি রয়েছেন সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি অসুস্থতার নামে হাসপাতালের একটি স্যুইটে রয়েছেন। এখন পর্যন্ত হাসপাতাল সূত্রে এমন কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি, যার উপর ভিত্তি করে বলা যায় সুদীপবাবু রীতিমতো অসুস্থ। তাঁর এমন কোনও সাংঘাতিক রোগের চিকিৎসাও হয়নি এতদিনে। বড় ধরনের শারীরিক কোনও অসুস্থতার প্রমাণও মেলেনি।

হাসপাতালকে হোটেল বানিয়েছেন সুদীপ! কত টাকা খরচ করেছেন, জানলে চোখ কপালে উঠবে

সিবিআই আইনজীবী তাঁর সওয়ালে জানান, এখন পর্যন্ত ১৪ লক্ষ টাকা খরচ হয়েছে সুদীপবাবুর হাসপাতালে থাকা ও চিকিৎসা খাতে। তার মধ্যে ১১ লক্ষ টাকা শুধু গিয়েছে স্যুইট ভাড়া বাবদ। অর্থাৎ যে হাসপাতাল কক্ষে তিনি ছিলেন, সেই স্যুইটের ভাড়া ১১ লক্ষ টাকা। বাকি তিন লক্ষ টাকা খরচ হয়েছে তার চিকিৎসা, শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও ওষুধের জন্য। কেন স্যুইট ভাড়া এত বেশি, আর চিকিৎসা খরচ তুলনায় এত কম?

এ থেকেই প্রমাণিত শুধু বিলাসবহুল জীবনযাপনের জন্যই তিনি হাসপাতালে রয়েছেন, শারীরিক অসুস্থতা মুখ্য নয়। এই তিন মাসে তিনি স্যুইটে থেকেছেন, মাসাজ নিয়েছেন, ফিজিওথেরাপি করেছেন, আর রক্তপরীক্ষা-সহ কয়েকটি শারীরিক পরীক্ষা করানো হয়েছে। শুধু গ্যাসের ওষুধ খেয়েছেন কয়েকটা। তাহলে তাঁকে যে গুরুতর অসুস্থ বলে দাবি করা হয়েছে বা হচ্ছে, তার সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে বাধ্য।

English summary
CBI questions Sudip Bandopadhyay's luxurious living in Bhubaneswar hospital
Please Wait while comments are loading...