Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

পাহাড়ে বনধ ডেকে আর্থিক ক্ষতিপূরণের সামনে মোর্চা, কলকাতা হাইকোর্টে হল শুনানি

Subscribe to Oneindia News

মমতা বন্দ্যোপাধ্যার অনেক আগেই পাহাড়ের বনধকে অনৈতিক আখ্যা দিয়েছিলেন, এবার তাতে সিলমোহর লা্গাল হাইকোর্ট। শুক্রবার কলকাতা হাইকোর্ট ঘোষণা করে দিল পাহাড় বনধ অবৈধ। ফলে বনধ ডেকে আরও বিপাকে পড়ল গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা। এই পরিস্থিতিতে মোর্চা নেতৃত্বকে পাহাড় বনধে ক্ষতিপুরণও দিতে হতে পারে।

 ফাইল ছবি, নিজস্ব চিত্র

বিচারপতি এদিন পাহাড় বনধের জেরে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কত তা জানাতে নির্দেশ দিয়েছেন সরকারি আইনজীবীর কাছে। দুসপ্তাহের মধ্যে ক্ষয়ক্ষতির পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট জমা দিতে হবে হাইকোর্টে। এরপরই তা খতিয়ে দেখে আদালত নির্দেশ দেবে ক্ষতিপূরণ আদায়ের। মোর্চার কাছ থেকে ওই ক্ষতিপূরণ আদায় করা হতে পারে।
এবার পুরসভা নির্বাচনের পর মমতার প্রথম সফরেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পাহাড়। বিক্ষোভ, আন্দোলন, পুলিশের সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধ, সবশেষে বনধের রাজনীতিতে সরগরম হয়ে ওঠে পাহাড়। মুখ্যমন্ত্রীর উপস্থি্তিতে জ্বলতে শুরু করেছিল পাহাড়। মুখ্যমন্ত্রী নিজে দাঁড়িয়ে থেকে তা প্রশমিত করে কলকাতায় ফেরেন।
কিন্তু ধিকিধিকি আগুন জ্বলতেই থাকে। মমতা ফিরে যাওয়ার পরই আসল খেলাটা শুরু করেন বিমল গুরুং। অনির্দিষ্টকালীন বনধ ডেকে পাহাড়ের পর্যটকদের তাড়িয়ে ছাড়েন তিনি। মমতার প্রশাসন গুরুং-এর বিরুদ্ধে কড়া ভূমিকা নেয়। সেনা নামিয়ে, পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করে পাহাড়ে অশান্তির আগুন প্রশমিত করার চেষ্টা হয়।
পাহাড় বনধ, সৌঃ টুইটার

পাহাড়ের এই বনধ বেআইনি বলে তখনই মন্তব্য করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপর হাইকোর্টও জানিয়ে দিল তা। বনধের পরদিনই মোর্চার পক্ষ থেকে ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে গিয়ে জানানো হয়েছিল, তারা বনধ ডাকেনি। বনধ ডেকেছে যুবমোর্চা। ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগের জন্য তাঁরা দায়ী নয় বলেও মন্তব্য করেন মোর্চা সুপ্রিমো।
রাজনৈতিক মহলের একাংশের ধারণা, আসলে পাহাড়ে মোর্চার আধিপত্যে তৃণমূল ক্রমশ ভাগ বসাতে শুরু করায় তার মোকাবিলা কোন পথে করবেন গুরুং, তা স্থির করে উঠতে পারছেন না তিনি। তাই নিজেদের অবস্থার বারবার বদল করছেন। বনধের পর আমরা বনধ ডাকিনি বলে দাবি করা, তারপর ফের অনির্দিষ্টকালীন বনধের রাস্তায় হাঁটার মধ্যে এই অস্থিরতা রয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে।
উল্লেখ্য, এবার মিরিক পুরসভা জয়ের মাধ্যমে দীর্ঘ তিন দশক পর পাহাড়ে সমতলের কোনও দল হিসেবে ক্ষমতায় আসে তৃণমূল। এমনকী দার্জিলিং, কার্শিয়াং ও কালিম্পং পুরসভাতেও তৃণমূল প্রতিনিধি পাঠাতে সক্ষম হয়। পাহাড়ে নিজেদের কর্তৃত্বে তৃণমূল ভাগ বসাবে, সেটা মেনে নিতে পারছে না মোর্চা। তাই পুরনো গোর্খাল্যান্ডের দাবিকে ফের তুলে ধরে পাহাড়ে আগুন জ্বালাতে নেমে পড়েন মোর্চা সমর্থকরা।
English summary
Kolkata High Court says hill strike is illegal. And Gorkha Janmukti Morcha may directed to compensate to the affected people of hill.
Please Wait while comments are loading...