Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

ভারতীয় ক্রিকেটের নতুন তারাদের চিনুন নতুন রূপে, জেনে নিন তাঁদের উঠে আসার পথ

  • Posted By: Debalina
Subscribe to Oneindia News

ভারতীয় ক্রিকেটের নয়া সেনসেশন তাঁরা। মিতালি রাজ, হরমনপ্রীত কউরদের নাম এখন মুখে মুখে ফিরছে। তবে খুব বেশি কি জানেন এঁদের সম্পর্কে। না বোধহয়। ওয়ান ইন্ডিয়া বাংলার এই বিশেষ প্রতিবেদনে জেনেন নিন মিতালি-হরমনপ্রীতদের।

মিতালি-র পরিচয়

মিতালি-র পরিচয়

১৯৮২ সালের ৩ ডিসেম্বর যোধপুরে জন্মান ভারতীয় দলের বর্তমান অধিনায়ক। বাবা দোরাই রাজ ইন্ডিয়ান এয়ার ফোর্সে কাজ করতেন। মায়ের নাম লীলা রাজ। মিতালি বাবার দিক থেকে রাজপুত হলেও তাঁর মাতৃভাষা তামিল।

ক্রিকেটে আসা

ক্রিকেটে আসা

মাত্র ১০ বছর বয়স থেকে ক্রিকেটে আসা। ১৭ বছর বয়সে জাতীয় দলে প্রথমবার সুযোগ পান। আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে একদিনের ম্যাচে আত্মপ্রকাশ ঘটেছিল মিতালির।

কোথায় থাকেন

কোথায় থাকেন

যোধপুরে জন্মালেও ভারতীয় দলের অধিনায়ক এখন থাকেন তেলেঙ্গানার হায়দরাবাদে। বড় ভাইয়ের সঙ্গে ক্রিকেট খেলতে যেতেন। পড়াশুনো করতেন সেকেন্দ্রাবাদের কেইস হাই স্কুলে। ছেলেদের সঙ্গে ক্রিকেট খেলে বড় হয়ে ওঠা মিতালি শাস্ত্রীয় নৃত্য শিখেছেন ৮ বছর।

পুরুষ ক্রিকেটারদের সঙ্গে তুলনা অপছন্দ

পুরুষ ক্রিকেটারদের সঙ্গে তুলনা অপছন্দ

হায়দরাবাদি এই তরুণী -র একদম অপছন্দ তুলনা। তাও পুরুষ ক্রিকেটারদের সঙ্গে। বিশ্বকাপে-র সময় যখন তাঁকে প্রশ্ন করা হয়েছিল তাঁর ফেভারিট ক্রিকেটার কে, তখনই প্রতিবাদ করেছিলেন তিনি। মহিলা ক্রিকেটের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী মিতালিকে বর্তমানে সচিনের সঙ্গে তুলনা করা হচ্ছে। তাতেও খুশি নন তিনি। নিজের স্বতন্ত্র পরিচিত বানাতে বদ্ধপরিকর মিতালি।

সেমিফাইনালে তাঁর ধামাকা ইনিংসে ভর দিয়েই বিশ্বকাপের ফাইনালে পৌঁছেছিল ভারতীয় দল। হরমনপ্রীত কউরের ফ্যান ফলোয়ার এই কদিনেই বেড়েছে কয়েক হাজার।

হরমনপ্রীতের পরিচয়

হরমনপ্রীতের পরিচয়

পাঞ্জাবের মোগায় ১৯৮৯ সালের ৮ মার্চ জন্মেছেন হরমনপ্রীত কউর। বাবা হরমন্দর সিং ভুল্লার ছিলেন ভলিবল ও বাস্কেটবল খেলোয়াড়। মায়ের নাম সতিন্দর কউর।

খেলার শুরু

খেলার শুরু

শিখ ধর্মাবলম্বী পরিবারে জন্ম নেওয়া হরমনপ্রীত ৩০ কিলোমিটার দূরের ট্রেনিং স্কুলে গিয়ে ক্রিকেট শিখতেন। ছোট থেকেই লড়াকু হরমনপ্রীতের ক্রিকেটের ভালবাসা দারুণ।

জাতীয় দলে ঢোকা

জাতীয় দলে ঢোকা

জাতীয় দলে সুযোগ পান ২০০৯ সালের মার্চ মাসে। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে একদিনের ম্যাচে অভিষেক। ২০১৪ সালে ভারতীয় রেলে চাকরির সূত্রে মুম্বইতে চলে আসেন।

নিজের আইডল

নিজের আইডল

ভারতীয় দলের এই বুমিং স্টারের আইডল বীরেন্দ্র সেওয়াগ। ধামাকা ক্রিকেট খেলতে ভালবাসেন তাই আইডলও ধামাকাদার।

English summary
Know some information about Indian cricket's new sensations
Please Wait while comments are loading...