Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

এদিন শহিদ দিবসের মঞ্চে দাঁড়িয়ে যে বক্তব্য রাখলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

  • By: OneIndia Bengali Digital Desk
Subscribe to Oneindia News

কলকাতা, ২১ জুলাই : শহিদ দিবসের মঞ্চ থেকে দাঁড়িয়ে দলের কর্মীদের যেমন কড়া বার্তা দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়, তেমনই কেন্দ্রের বিজেপি সরকারে উদ্দেশ্যে কড়া আক্রমণ শানালেন তৃণমূল নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। সাম্প্রদায়িক শক্তি যাতে দেশে মাথাচাড়া না দেয়, তার জন্যও কঠিন লড়াইয়ের ডাক দেন মমতা। [শহিদ দিবসের মঞ্চ থেকে তৃণমূল নেতারা যে বক্তব্য রাখলেন]

এদিন শহিদ দিবসের মঞ্চে ভিড় দেখে আপ্লুত মমতা বলেন, আমরা এদিন রেকর্ড করেছি। আমাদের রেকর্ড আমরাই ভাঙব, আবার রেকর্ড গড়ব। এদিন মমতা দিল্লির সরকারকে কড়া চ্যালেঞ্জ করেন। এদিন যা যা বললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তা জেনে নিন একনজরে। [শহিদ দিবসের মঞ্চে বক্তব্য রেখে বিতর্ক উসকে দিলেন সেই কবীর সুমন]

এদিন শহিদ দিবসের মঞ্চে দাঁড়িয়ে যে বক্তব্য রাখলেন মমতা
  • শহিদ পরিবারের সকলকে সম্মান জানাই। যারা এসেছেন আর যারা আলতে পারেননি তাদের সম্মান জানাই
  • মা, মাটি, মানুষের সরকারকে দ্বিতীয়বারের জন্য নির্বাচিত করার জন্য সকলকে অভিনন্দন জানাই।
  • ২১ জুলাই শুধু একটা সমাবেশ নয়, ২১ মানে আন্দোলন, প্লাবন, গর্জন, নবীন, প্রবীণ, ২১ মানেই মনের কথা, প্রাণের কথা, গণ আন্দোলন, ফিরে দেখা, শ্রাবণ মাস।
  • বিগত দিনে বাংলায় সন্ত্রাস হয়েচে। একটার পর একটা ঘটনা বাংলার মাটিতে হয়েছে। মরিচঝাঁপি, নন্দীগ্রাম, নেতাই, সিঙ্গুর, আনন্দমার্গী হত্যা হয়েছে বাংলায়।
  • আগামী বছর ২৪ বছর পূর্ণ হয়ে ২৫-এ পড়বে শহিদ দিবসের ঘটনা। তাই আগামী এক বছর ধরে সারা দেশে কর্মসূচী নেওয়া হবে।
  • আন্দোলন মানে সন্ত্রাস, গুণ্ডামি নয়, মানুষকে ভালোবাসা ও কাজের মধ্যে দিয়ে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। এটাই ২১ আমাদের শিখিয়েছে।
  • তৃণমূল মানে উন্নয়ন, মানুষের পাশে, মানুষের বন্ধু হয়ে দাঁড়ানো। মানুষই তৃণমূলের সবচেয়ে বড় সম্পদ। সবাই বিধায়ক, সবাই সাংসদ হয় না। যে জোরগলায় তৃণমূলের জয়ধ্বনি করে, সেই আসল তৃমমূল, তাকে আমি সেলাম জানাই, প্রণাম জানাই।
  • এবারের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যে অত্যাচার হয়েছে, তা কোনওবার হয়নি। আমাদের ভোট দিতে দেওয়া হয়নি। কর্মীরা লড়াই করে জয় এনেছে।
  • মানুষের বিরুদ্ধে কাজ করলে আমি মানব না। আমি, আমাদের সরকার মানুষের পক্ষে। তবে কুৎসা, অপপ্রচার, ষড়যন্ত্রও আমরা মেনে নেব না।
  • মানুষের সঙ্গে থেকেই আমাদের কাজ করতে হবে। পরিস্থিতি যেমনই হোক, মানুষের পাশে কষ্ট করে দাঁড়াতে হবে। সংগ্রাম করতে হবে। ঝগড়া-বিবাদে জড়াবেন না। সকলের বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জন করতে হবে।
  • অনেক কষ্ট করে তৃণমূল কংগ্রেস তৈরি হয়েছে। আমরা মাথানত করতে শিখিনি। চমকে আমাদের মাথা নত করা যাবে না। যত এমন করবে, তত তৃণমূল মাথা উঁচিয়ে মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়াবে।
  • সাধারণ মানুষের মতো জীবনযাপন করতে হবে। অসাধারণ হতে গিয়ে সর্বনাশ হবে।
  • পঞ্চায়েতে ভালো কাজ করতে হবে। পুরসভাগুলিতে নিজের ইচ্ছেমতো কাজ করা যাবে না। সকলকে নিজের কনফিডেন্সে নিয়ে কাজ করতে হবে। প্রশাসনকে সাহায্য করতে হবে। শিক্ষক-শিক্ষিকা, সমাজের গণ্যমান্যদের সম্মান করতে হবে। ২-১ জনের জন্য গোটা দলকে খারাপ হতে হয়।
  • দিদি আপমাদের পাহারাদার আছে। সবাইকে হয়ত চাকরি দিতে পারবন না। কেউ চাকরি করবে, কেউ ব্যবসা করবে, কেউ সেলফ-হেলপ গোষ্ঠী তৈরি করে কাজ করবে।
  • ৩৪ বছর বামফ্রন্ট ছিল, কিচ্ছু করতে পারেনি। আমরা পরিকল্পনা উন্নয়নে অনেক কাজ করেছি। কেন্দ্র সরকার কোনও সাহায্য করেনি।
  • এবছর ৪৭ হাজার কোটি টাকা দেনা আমাদের শোধ করতে হবে। ফলে আমরা কোথা থেকে উন্নয়নের কাজ করব। এই দেনা আমরা করিনি। বাম সরকার করে গিয়েছে। আজকে দেনা করিয়ে অনেক রাজ্য কেন্দ্রের মৃত্যুর ফাঁদে পা দিয়েছে।
  • গণতন্ত্রকে নষ্ট করে দিচ্ছে কেন্দ্র আর সকলকে ভয় দেখাচ্ছে। সর্বশিক্ষা অভিযান, পুলিশ আধুনিকীকরণের টাকা বন্ধ করে দিয়েছে কেন্দ্র।
  • স্বচ্ছ্ব ভারত, টাকা-পয়সা নেই, ভাওতা দিচ্ছে। সব প্রকল্প নিয়ে প্রতারণা করছে কেন্দ্র। রাজ্যের সঙ্গে না আোচনা করে একেরপর এক প্রকল্প ঘোষণা কার হচ্ছে অথচ টাকা নেই। কাজ করছে রাজ্য আর তার কৃতিত্ব নিচ্ছে কেন্দ্র।
  • কোন রাজ্যে কত দেনা তা সব আমরা জানি। মহারাষ্ট্র সবচেয়ে এগিয়ে আগে দেনায়। তবে এদের কথা কেউ জানতে পারে না। আলোচনা হয় না। গুজরাতে কত দেন খোঁজ নিন, জেনে যাবেন।
  • কেন্দ্রের অত্যাচারের ফলে ৮০ হাজার শিল্পপতি দেশ ছেড়ে চলে গিয়েছে। ইমিগ্রেশন সেন্টারে গিয়ে খোঁজ নিন, সত্যিটা জেনে যাবেন।
  • সারা দেশে বাড়ি ভাড়া দেওয়ার আগে সাবধান, আগামিদিনে এটা আপনার সর্বনাশ ডেকে আনতে পারে। মুখ দেখে বাড়ি ভাড়া দেবেন না।
  • নানা কমিটির নাম করে এলাকায় এলাকায় ঝগড়া, দাঙ্গা লাগানোর চেষ্টা করছে একটি বিশেষ রাজনৈতিক দল। বাড়ি বাড়ি গিয়ে উসকানোর চেষ্টা করছে। নিজস্ব পছন্দ মেনেই মানুষ চলবে। কেউ যদি এটা ভাঙার চেষ্টা করে তাহলে আমরা ছেড়ে কথা বলব না। কোনও দল ঠিক করতে পারে না ভারতবর্ষে কে কি করবে।
  • ভোটে জেতার জন্য দেশটাকে টুকরো করা যায় না। পাঠানকোট, বাংলাদেশে যখন জঙ্গি হামলা হয়, তখন তৃণমূল মতামত দেয় না। পাশে গিয়ে দাঁড়ায়. তৃণমূল দায়িত্বশীল রাজনৈতিক দল।
  • সরকারে যারা রয়েছেন, মানুষকে হেলাফেলা করবেন না। নজর রাখবেন যাতে সকলে ভালো থাকে। মানুষ ভালো থাকলে দল ভালো থাকবে।
  • ত্রিপুরায় আমরা যাব। যাতে ত্রিপুরায় সরকার তৈরি হয় তা আমরা চেষ্টা করব। মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সাহায্য করা, ভালোবাসা আমাদের কাজ।
  • মমতা নিজে কিছু চায় না। আমি বাংলায় থাকতে চাই। বাংলায় কাজ করতে চাই। তবে আমি চাই, আমাদের বন্ধুরা কেন্দ্রে সরকারে আসুক, গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা, যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো মজবুত হোক এটা আমি চাই।
  • আইন হাতে নেওয়া যাবে না। পিটিয়ে মারা যাবে না, জোর করে আগুন লাগানো, ঝামেলা করা যাবে না, মা-বোনেদের সম্মান দিতে হবে। সকলে পাড়ায়-পাড়ায় এক হয়ে কাজ করবেন। গরিব, আদিবাসী, সংখ্যালঘুদের সকলকে ভালোবাসতে হবে।
  • ২ টাকা কিলো চাল, কন্যাশ্রী, সবুজ সাথী, সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্য়ে চিকিৎসা, বাউল সহ লোকশিল্পীদের অনুদান সহ নানা কাজ আমরা করেছি।
  • বাড়ি গিয়ে ক্য়ালেন্ডার তৈরি করুন। বিভিন্ন স্মরণীয় দিনে অনুষ্ঠান পালন করুন। সকলকে সম্মান দিয়ে পঞ্চায়েত, পুরসভা, ব্লক ইত্যাদি জায়গায় সকলে ভালো করে কাজ করবেন।
  • মানুষকে না ভালোবাসলে তৃণমূল কংগ্রেসে থাকবেন না। বাংলাকে বিশ্বসেরা করাই আমাদের লক্ষ্য।
English summary
What TMC supremo Mamata Banerjee has said at Shahid Diwas at Esplanade, Kolkata
Please Wait while comments are loading...