Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

কালো টাকা উদ্ধারে হানা ইডি, আয়কর দফতরেরও, রাজ্যে ১৫ জায়গায় হানা একযোগে

Subscribe to Oneindia News

কলকাতা, ১৯ ডিসেম্বর : সর্ষের মধ্যেই লুকিয়ে রয়েছে ভূত! একের পর এক ব্যাঙ্ক আধিকারিকদের কীর্তি প্রকাশ হয়ে পড়ছে। কালো টাকা সাদা করার চক্র লুকিয়ে রয়েছে ব্যাঙ্কেই। বড়বাজারের বেসরকারি ব্যাঙ্কের পর এবার মেটিয়াব্রুজের এক রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের আধিকারিকরাও ইডি-র নজরে। মেটিয়াব্রুজের ইউনাইটেড ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার শাখায় ন'টি সন্দেহজনক অ্যাকাউন্টের সন্ধান পেয়েছেন ইডি-র তদন্তকারী আধিকারিকরা। সোমবার এই শাখায় গিয়ে ব্যাঙ্কের আধিকারিকদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন তাঁরা।

এদিকে কালো টাকা উদ্ধারে রাজ্যজুড়ে হানা দিল আয়কর দফতর। সোমবার কলকাতা-সহ রাজ্যের ১৫টি জায়গায় হানা দেন আয়কর দফতরের আধিকারিকরা। এদিন ডিম ব্যবসায়ীর কাছে নতুন নোটে উদ্ধার হল ১১ লক্ষ টাকা। মেদিনীপুরে সমবায় ব্যাঙ্কের ১০০ কোটি টাকাও এবার আয়কর দফতরের নজরে।

কালো টাকা সাদা করার চক্রে ব্যাঙ্ক আধিকারিক, ইডি নজরে মেটিয়াব্রুজের ইউবিআই শাখা

কেন্দ্রীয় সরকার নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করার পর কালো টাকা ধরা পড়ার একটা সমূহ সম্ভবানা তৈরি হবে বলে মনে করা হচ্ছিল। কিছু ক্ষেত্রে কালো টাকা ধরা পড়লেও, তা যৎসামান্যই। এরপরই প্রকাশ্যে আসে বহু কালো টাকা সাদা হয়ে যাচ্ছে কিছু অসাধু ব্যাঙ্ক আধিকারিকদের 'সৌজন্যে'। তারপরই ইডি এই বিষয়টিতে গুরুত্ব দেয়। প্রথমে রাজধানী শহর দিল্লিতে ধরা পড়েন ব্যাঙ্ক আধিকারিকরা। তারপর কলকাতা-সহ অন্যান্য শহরেও অভিযান চালায় ইডি।

প্রথম দফায় কলকাতায় তদন্তে নেমে বড়বাজারের বেসরকারি ব্যাঙ্কের শাখার আধিকারিকরা গ্রেফতার হন। বড়সড় লেনেদেন হদিশ পায় ইডি আধিকারিকরা। এবার মেটিয়াব্রুজের ইউবিআই-এর শাখায় তল্লাশি চালায় ইডি। ন'টি সন্দহজনক অ্যাকাউন্টে ৬ কোটি ৬০ লক্ষ টাকা জমা পড়েছে বলে জানতে পারেন তদন্তকারীরা।

এইভাবে কালো টাকা সাদা করার কাজে সহযোগিতা করছেন ব্যাঙ্কের আধিকারিকরা। এই দুর্নীতিতে শুধু সরকারি বা বেসরকারি বাঙ্কগুলিই নয়, জড়িয়ে পড়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক আধিকারিকদের নাম। গোটা দেশে ২৭ জন ব্যাঙ্ক আধিকারিক সাসপেন্ড হয়েছে।

English summary
Black money racket in bank of kolkata. Ed raided in branch of UBI at Metiabruz.
Please Wait while comments are loading...