Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

এক মঞ্চে দাঁড়ালেন হিলারি-মিশেল, 'ফার্স্ট লেডি'রাও আজ মার্কিন রাজনীতিতে প্রভাবশালী

  • By: SHUBHAM GHOSH
Subscribe to Oneindia News

উইনস্টন-সালেম (নর্থ ক্যারোলিনা), ২৮ অক্টোবর : অবশেষে মিলিত হলেন দুই ফার্স্ট লেডি - প্রাক্তন এবং বর্তমান৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলিনা প্রদেশের উইনস্টন-সালেমের একটি জনসভায় শুক্রবার (অক্টোবর ২৮) একই মঞ্চে দাঁড়ান এবছরের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের ডেমোক্র্যাট পদপ্রার্থী হিলারি ক্লিন্টন এবং বিদায়ী রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামার স্ত্রী 'ফার্স্ট লেডি' মিশেল ওবামা ৷

মিশেল সেইসময়ে এবং "ফার্স্ট লেডিজ, উই রক" বললে করতালিতে ফেটে পড়েন লরেন্স জোয়েল ভেটেরান্স মেমোরিয়াল কোলিসিয়ামের অগুনতি দর্শক ৷ হিলারি নিজেও প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি বিল ক্লিন্টনের স্ত্রী হওয়ার সুবাদে আট বছর (১৯৯৩-২০০১) মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফার্স্ট লেডি ছিলেন৷

এক মঞ্চে দাঁড়ালেন হিলারি-মিশেল, 'ফার্স্ট লেডি'রাও আজ মার্কিন

'দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট'-এর একটি প্রতিবেদনের মতে, মার্কিন মুলুকের ফার্স্ট লেডিদের এখন আর শুধু রাষ্ট্রপতির অর্ধাঙ্গিনী নয়, বরং একেকজন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বই বলা চলে৷

অন্তত প্রাক্তন ফার্স্ট লেডি ২০০৮ সালে বারাক ওবামার কাছে হেরে যাওয়ার প্রায় এক দশক পরেও হোয়াইট হাউসের দৌড়ে এগিয়ে গিয়েছেন এবং মিশেল হিলারির প্রতিপক্ষ ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে নির্ভেজাল রাজনৈতিক আক্রমণ শানিয়েছেন বিভিন্ন জনসভায়, তাতে মার্কিন ফার্স্ট লেডিদের আর শুধুমাত্র নীরব সাক্ষী বলা চলে না৷

এদিনের সভায় মিশেল বলেন যে রাষ্ট্রপতি হওয়ার যোগ্য যদি কেউ হয়ে থাকেন, তবে তিনি প্রাক্তন ফার্স্ট লেডি এবং বিদেশসচিব হিলারি ক্লিন্টন৷ নর্থ ক্যারোলিনার মতো কঠিন সমীকরণের রাজ্যের মানুষের কাছে মিশেল আবেদন জানান আগামী ৮ই নভেম্বর হিলারিকে ভোট দিয়ে জয়ী করতে৷ এখানে উল্লেখ্য, মিশেল সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন নির্বাচনী জনসভায় ট্রাম্পকে পরোক্ষে আক্রমণ করে হিলারির পক্ষেই সওয়াল করেছেন৷

মিশেল এদিন এও বলেন যে রাষ্ট্রপতি পদের দাবিদার হিসেবে হিলারি যতটা যোগ্য, ততটা তাঁর স্বামী বারাক বা হিলারির স্বামী বিলও ছিলেন না, জানাচ্ছে 'ওয়াশিংটন পোস্ট'-এর প্রতিবেদনটি৷ "দায়িত্ব নেওয়ার প্রথম দিন থেকেই হিলারি এদেশের সম্পূর্ণ দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেওয়ার ক্ষমতা রাখেন," বলেন মিশেল৷

এবং রাজনৈতিকভাবে ছাড়াও মিশেল মনে করিয়ে দিতে ভোলেননি যে হিলারি একজন মহিলা৷

হিলারি এবং মিশেলের এই যুগলবন্দী প্রত্যক্ষ করতে এদিন কোলিসিয়ামের ভিতরে এবং বাইরে উপচে পড়ে ভিড়৷ আর এতেই প্রমাণিত হয় যে রাজনীতির আঙ্গনে 'ফার্স্ট লেডি'দের কদর এখন কতটা বেড়েছে৷

এবারের এই বিতর্কিত নির্বাচন ঘিরে যখন মেরুকরণ তুঙ্গে উঠেছে, তখন 'অরাজনৈতিক' মিশেল ওবামার উপস্থিতি এবং ইতিবাচক প্রভাব ডেমোক্র্যাটদের অনেকটাই সাহায্য করেছে, তা মানছেন বিশেষজ্ঞ মহলের অনেকেই৷

ট্রাম্প শিবিরের কাছে মিশেল ওবামার জবাব বলতে গেলে এবার কিছুই ছিল না৷ ২০০৮ সালে মিশেল তাঁর স্বামীর প্রতিপক্ষ হিসেবে হিলারিকে ঘুরিয়ে আক্রমণ করেছিলেন বলে ট্রাম্প দাবি তুললেও তা ধোপে টেকেনি৷

উল্টোদিকে, ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মিশেলের 'অরাজনৈতিক' সমালোচনা অনেকেরই মনে দাগ কেটেছে এবং সমস্ত দলীয় বিভাজন ব্যতিরেকে তার প্রভাব ব্যালটবাক্সে পড়বে বলে ধারণা অনেকেরই৷

English summary
Michelle Obama and Hillary Clinton share stage; are US first ladies becoming an important political institution?
Please Wait while comments are loading...