Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

ভোটের দিন 'জবাই' করব মার্কিনিদের, এবার হুমকি আইএস জঙ্গিদের

  • By: OneIndia Bengali Digital Desk
Subscribe to Oneindia News

নিউ ইয়র্ক, ৬ অক্টোবর : আল কায়েদার হুমকির পর একদিন কাটতে না কাটতেই এবার মার্কিন নির্বাচন নিয়ে হুমকি দিল জঙ্গি সংগঠন আইএসআইএস। মার্কিন গোয়েন্দা দফতর সূত্রে একদিন আগে জানানো হয় যে মার্কিন মুলুকে নির্বাচনের সময়ে নিউ ইয়র্ক, টেক্সাস ও ভার্জিনিয়ায় জঙ্গি হামলা চালাতে পারে আল কায়েদা। এবার একই হুমকি এল আইএসের তরফেও।

এবার একইরকম হুমকি আইএসের তরফেও দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে জঙ্গিদের উপরে নজরদারি চালানো সংস্থা "সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ"। বলা হয়েছে, নির্বাচনের দিন মার্কিনিদের জবাই করা হবে। এই হুমকির পাশাপাশি আইএস সেদেশে বসবাসকারী মুসলমানদের আসন্ন ভোটে যোগ দিতেও নিষেধ জানিয়ে অনুরোধ জানিয়েছে।

ভোটের দিন 'জবাই' করব মার্কিনিদের, এবার হুমকি আইএস জঙ্গিদের

জঙ্গি সংগঠনের ব্যাখ্যা, রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাটদের ইসলাম ও মুসলমানদের নিয়ে নীতিতে কোনও ভেদ নেই। অর্থাৎ দুটি দলের নীতিই ইসলাম ও মুসলমান বিরোধী।

সাইট ইন্টেলিজেন্সের তরফে ডিরেক্টর রিটা কার্টজৎ জানিয়েছেন, ইসলামিক স্টেটের আল হায়াত মিডিয়া সেন্টারের একটি প্রবন্ধে এই হুমকির কথা জানানো হয়েছে। যার সারমর্ম হল, "তোমাদের জবাই করা হবে এবং তোমাদের ব্যালট বাক্স গুড়িয়ে দেওয়া হবে।"

মোট ৭ পাতার প্রবন্ধের প্রতিটি ছত্রে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেওয়া হয়েছে। এবং কেন যুক্তরাষ্ট্রে হামলা চালানো যুক্তিযুক্ত তার ব্যাখ্যা দেওয়া হয়েছে। আরও বলা হয়েছে, ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকান- দুটি দলই এক নীতি নিয়ে চলছে এবং এরা ইসলাম বিরোধী।

সাইট ইন্টেলিজেন্সের বক্তব্য, মার্কিন নির্বাচন প্রক্রিয়াকে আঘাত হানতে ও সংবাদমাধ্যমের মনোযোগ আকর্ষণের জন্যই আইএস এই হুমকি দিয়েছে। এর আগে আল কায়েদার হুমকি নিয়ে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই আপাতত কোনও সত্যতা খুঁজে পায়নি।

যদিও মার্কিন সন্ত্রাসদমন স্কোয়াড ও প্রশাসন একযোগে নানা জায়গায় নজরদারি জারি রেখেছে। এবং যেকোনও ধরনের জঙ্গি হামলা রুখে দিতে তাঁরা সক্ষম হবে বলে এফবিআই এক বিবৃতি প্রকাশ করে জানিয়েছে।

English summary
ISIS calls for terror attacks in US on election day
Please Wait while comments are loading...