বাংলাদেশের পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটিতে পাহাড়িদের ঘর-বাড়িতে অগ্নিসংযোগ, লুটপাট

  • Posted By: BBC Bengali
Subscribe to Oneindia News
পার্বত্য চট্টগ্রামে বহু বছর ধরে রয়েছে পাহাড়ি-বাঙালিদের বিবাদ
BBC
পার্বত্য চট্টগ্রামে বহু বছর ধরে রয়েছে পাহাড়ি-বাঙালিদের বিবাদ

বাংলাদেশের পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটিতে স্থানীয় একজন আওয়ামী যুবলীগের কর্মীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে উত্তেজনার পর পাহাড়িদের ঘরবাড়ি এবং দোকানপাটে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

স্থানীয় পুলিশ জানিয়েছে, নুরুল ইসলাম নয়ন নামে এক যুবলীগ কর্মীর লাশ শুক্রবার ভোরে খাগড়াছড়ির দীঘিনালা-লংগদু সড়কের পাশে পাওয়া যাবার পর উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। লাশ নিয়ে শুক্রবার সকালে স্থানীয় বাঙালিরা মিছিল বের করলে আক্রমণের সূত্রপাত হয়।

লংগদু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোমেনুল ইসলাম বিবিসি বাংলাকে জানান, মিছিল নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে লংগদু উপজেলার তিনটিলায় ১০-১২টি এবং পার্শ্ববর্তী মানিকজুরছড়ায় তিন-চারটি বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করা হয়।

যেসব বাড়িতে আগুন দেয়া হয় তাদের মধ্যে তিনটিলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কলিন মিত্র চাকমার বাড়ি এবং পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির স্থানীয় অফিসও রয়েছে।

তবে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (পিসিজেএসএস) শুক্রবার এক বিবৃতিতে ঘটনাকে 'সংঘবদ্ধ সাম্প্রদায়িক হামলা' বলে আখ্যায়িত করে তার নিন্দা করেছে।

পিসিজেএসএস পুলিশের দেয়া ক্ষয়ক্ষতির হিসেবের সাথে দ্বিমত পোষণ করে বলে, লংগদু উপজেলার তিনটিলা এবং পার্শ্ববর্তী মানিকজুরছড়ায় ''জুম্মদের প্রায় ২৫০টি ঘরবাড়ি ও দোকানপাট সম্পূর্ণভাবে ভস্মীভূত হয়েছে''।

জনসংহতি সমিতি আক্রমণের জন্য স্থানীয় 'সেটলার' বাঙালিদের দায়ী ক'রে বলে, তারা সেনা বাহিনী এবং পুলিশের 'ছত্রছায়ায়' আক্রমণ চালিয়েছে।

পিসিজেএসএস বলছে, লাশ নিয়ে ''জঙ্গি মিছিল'' বের করার খবর জানাজানি হলে স্থানীয় নেতৃবৃন্দ লংগদু থানা এবং সেনা জোনের কর্মকর্তাদের কাছে তাদের আশঙ্কার কথা তুলে ধরেন। তবে মিছিল শান্তিপূর্ণ হবে বলে তাদের আশ্বস্ত করা হয় বলে পিসিজেএসএসের বিবৃতিতে বলা হয়।

মিছিলে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জামায়াতে ইসলামীসহ অন্যান্য সংগঠনের কর্মীরা অংশ নেয় বলে অভিযোগ করে জন সংহতি সমিতি সেনা-পুলিশসহ ''ঘটনার সাথে জড়িত'' সকলের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছে।

BBC
English summary
huts of hill region of bangladesh is been ransacked.
Please Wait while comments are loading...