চট্টগ্রামে গ্যারেজে বিলাসবহুল গাড়ি ফেলে রেখে মালিক লাপাত্তা

  • Posted By: BBC Bengali
Subscribe to Oneindia News
শুল্ক গোয়েন্দাদের অভিযানে এর আগেও এ ধরনের উচ্চমূল্যের গাড়ি জব্দ করা হয়েছিল ঢাকাসহ অন্য বড় শহরে।
BBC
শুল্ক গোয়েন্দাদের অভিযানে এর আগেও এ ধরনের উচ্চমূল্যের গাড়ি জব্দ করা হয়েছিল ঢাকাসহ অন্য বড় শহরে।

বাংলাদেশের চট্টগ্রামে একটি গ্যারেজে ফেলে রেখে যাওয়া দুটো বিলাসবহুল মার্সিডিজ বেঞ্জ গাড়ি জব্দ করেন শুল্ক গোয়েন্দা কর্মকর্তারা।

শুল্ক ফাঁকির দায় এড়াতেই গাড়ির মালিকেরা গ্যারেজে ফেলে রেখে যায় বলে শুল্ক গোয়েন্দা সূত্রে জানা গেছে।

গতকাল সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের মুরাদপুর এলাকার 'কার কোল্ড অ্যান্ড সার্ভিস সেন্টার' নামের একটি গ্যারেজে শুল্ক গোয়েন্দারা অভিযান চালান।

এরপর সেখান থেকে গাড়িদুটো উদ্ধার করা হয়। এর একটি কালো রং-এর মার্সিডিজ জিপ এবং অপরটি মার্সিডিজ গাড়ি।

গাড়ি দুটোর আনুমানিক মোট মূল্য প্রায় সাড়ে চার কোটি টাকা।

দুটি গাড়িই কারনেটের আওতায় আনা গাড়ি। শুল্কমুক্ত সুবিধায় পর্যটকদের গাড়ি নিয়ে আসার সুবিধাকে কারনেট বলা হয়।

তবে ঐ সুবিধা ২০১২ সালেই বিলুপ্ত করে দিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড।

এর আগে ঢাকা, সিলেটেও এ ধরনের বিলাসবহুল গাড়ি জব্দ করা হয়।

চট্টগ্রামে জব্দ করা মার্সিডিজ জিপের রেজিস্ট্রেশন নং: চট্ট মেট্রো -ঘ-১৪-১৭৫৩ আর 

অন্য মার্সিডিজ গাড়িটির রেজিস্ট্রেশন নং: ঢাকা মেট্রো-ভ-১৪-০২২১। তবে 

গাড়ি দুটোর রেজিস্ট্রেশন নম্বর ভূয়া বলে বিআরটিএ কর্তৃপক্ষে কাছ থেকে প্রাথমিক অনুসন্ধানে জেনেছেন শুল্ক গোয়েন্দারা।

বিশ্বজিৎ এবং যুবরাজ নামে দুজন ব্যক্তি সার্ভিসিং করার নাম করে ওই গ্যারেজে গাড়ি দুটো রেখে যান। গ্যারেজের মালিক মো: জামশেদ শুল্ক গোয়েন্দাদের এমন তথ্য জানিয়েছেন
শুল্ক গোয়েন্দাদের দেওয়া তথ্যমতে, কাস্টম হাউস চট্টগ্রামের মাধ্যমে গাড়ি দুটো ব্রিটেন প্রবাসী দুজনের নামে ফেরত নিয়ে যাওয়ার শর্তে শুল্কমুক্তভাবে আমদানি করা হয়েছিল। পরে তারা আর গাড়িদুটো ফেরত নেননি।

এরপর বিভিন্ন স্থানে শুল্ক গোয়েন্দারা সাম্প্রতিক অভিযান শুরু করলে গাড়িদুটো গ্যারেজে ফেলে রেখে যাওয়া হয়। 

প্রয়োজনীয় অনুসন্ধান শেষে বৃহস্পতিবার গাড়ি দুটো জব্দ দেখানো হয়েছে। 

এ বিষয়ে মামলা দায়েরের আইনি প্রক্রিয়া চলছে।

BBC
English summary
Chitagong: luxurious car abandoned at garage.
Please Wait while comments are loading...