Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

বাজেট অধিবেশনের শুরুতে ভাষণে যা বললেন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়

  • Posted By:
Subscribe to Oneindia News

নয়াদিল্লি, ৩১ জানুয়ারি : বাজেট অধিবেশনের শুরুতে প্রথা মেনে এদিন ভাষণ দিলেন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। বুধবার সাধারণ বাজেট ও রেল বাজেট একসঙ্গে পেশ হবে। স্বাধীনতার একবছরের ইতিহাসে এমন ঘটনা এই প্রথম ঘটতে চলেছে। তার আগে এদিন বাজেটের সংক্ষিপ্তসার শোনা গেল রাষ্ট্রপতির ভাষণে।

নোট বাতিল থেকে শুরু করে চাকরি, শৌচালয় নির্মাণ, গৃহ নির্মাণ, জঙ্গিবাদ দমন থেকে শুরু করে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক, ইত্যাদি সমস্ত বিষয় নিয়ে এদিন বাজেট অধিবেশনের শুরুতে ভাষণ দিলে রাষ্ট্রপতি। আসুন একঝলকে দেখে নিন ঠিক কী বললেন তিনি।[বাজেটের আগে পেশ হল ইকোনমিক সার্ভে রিপোর্ট : জেনে নিন কি রয়েছে তাতে]

বাজেট অধিবেশনের শুরুতে ভাষণে যা বললেন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়
  • এবছরের বাজেট অধিবেশন ঐতিহাসিক। এই প্রথমবার ভারতের ইতিহাসে সাধারণ বাজেট ও রেল বাজেট একসঙ্গে পেশ হতে চলেছে।
  • আমার সরকারের আমলে গ্যাস ভর্তুকি কমেছে। নিজে থেকে অনেকে গ্যাস ভর্তুকি ছেড়ে দিয়েছেন। ফলে তা গরিব মানুষকে সাহায্য করেছে। ১.৪ লক্ষ গ্রাম ডিফিকেশন মুক্ত হয়েছে।
  • রাষ্ট্রনির্মাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহণ করেছে আমার সরকার। আমার সরকারের নীতিগুলির মূল লক্ষ্যই হল গরিব, শোষিত, বঞ্চিত ও যুবদের পাশে দাঁড়ানো।
  • কালো টাকা ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে দেশবাসী, বিশেষ করে গরিব মানুষ যেভাবে প্রতিরোধ গড়ে তুলেছে তা এককথায় অসাধারণ।
  • ২৬ কোটির বেশি জনধন অ্যাকাউন্ট ২০ রুপে ডেবিট কার্ড বিলি হয়েছে। ২ লক্ষ কোটি টাকা ৫.৬ কোটি ঋণের ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী মুদ্রা যোজনা মেনে দেওয়া হয়েছে।
  • দিনদয়াল উপাধ্যায় যোজনা মোতাবেক ৬ হাজার কোটি টাকা হেলফ হেল্প গ্রুপের মহিলাদের দেওয়া হয়েছে। এর ফে ১.১ কোটি মহিলা উপকৃত হবেন।
  • গরিবদের জীবনের মান বাড়াতে অনেক প্রকল্প করেছে আমার সরকার। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা মেনে ঘর তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ৩ কোটি বাথরুম তৈরি হয়েছে।
  • প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনা অনুযায়ী কুকিং ফুয়েল এলপিজি। কাঠ ও কয়লার ধোঁয়া থেকে বাঁচাতে এই উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এর মধ্যে ৩৭ শতাংশ তপশিলি জাতি ও উপজাতিদের কাছে গিয়েছে।
  • উজ্জ্বলা বাল্ব বানিয়ে ২০ কোটি মানুষকে সুবিধা দেওয়া হয়েছে। এতে ১০ হাজার কোটি টাকা খরচ বেঁচেছে গরিবের।
  • ন্যাশনাল অ্যাপ্রেন্টিস প্রোগ্রাম স্কিম তৈরি করে বাজেটে তার জন্য ১০ হাজার কোটি টাকা অনুদান ধরা হয়েছে। প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সম্পর্ক বাড়াতে রেল যোগাযোগ তৈরি করতে চলেছি আঈমরা।
  • কৃষকের পাশে দাঁড়াতে আমার সরকার বদ্ধপরিকর। চাষিদের ভালোর জন্য নানা ভাবে চেষ্টা করা হচ্ছে। কিষাণ ওয়েলফেয়ারের স্কিম অনুযায়ী অনেক বছরের খরা সময়ের পরে এবছর ৬ শতাংশ ফসলের বৃদ্ধি হয়েছে। শস্যের দাম বেড়ে যাওয়া গতবছরের গভীর চিন্তার বিষয় ছিল। তবে এবছর তা দূর করতে সক্ষম হয়েছে সরকার।
  • দেশের উন্নয়নে নারীশক্তির আবশ্যকতা কে উপলব্ধি করেছে আমার সরকার। আমাদের মেয়েরা অলিম্পিকে গিয়ে দারুণ ফলাফল করেছে। পিভি সিন্ধু, সাক্ষী মালিক দীপা কর্মকারকা দেখিয়ে দিয়েছে মেয়েরা কি করতে পারে। মহিলা আমাদের আর্মড ফোর্সে যুক্ত হয়েছে। এয়ারফোর্সেও রয়েছে মেয়েরা। ফলে এটা বোঝা গিয়েছে যে মহিলাদের শক্তিশালী করলে আমরা কতটা এগিয়ে যেতে পারি।
  • ১১ হাজার কোটি টাকা বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও প্রকল্পে দেওয়া হয়েছে। গর্ভবতী মহিলাদের ছুটি বাড়িয়ে ১২ থেকে ২৬ করে দেওয়া হয়েছে।
  • আমাদের ৬৫ শতাংশ জনসংখ্যা ৩৫ বছরের নীচে। তাই আমার সরকার অনেক উদ্যোগ নিয়েছে তাদের নানা ধরনের স্কিল প্রোগ্রাম শেখানোর জন্য। ১২ হাজার কোটি টাকা খরচ করে ১ কোটি যুবকে নানা স্কিল শেখানো হচ্ছে।
  • ৬ হাজার কোটি টাকা খরচ করে মহিলাদের ১.১ কোটি কর্মসংস্থান তৈরির চেষ্টা করেছে সরকার।
  • শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি ৪২ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে। ইউএএন নম্বর তৈরি শ্রমিকের প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকাকে সুরক্ষিত করা হয়েছে। সপ্তম পে কমিশন ৫০ লক্ষ সরকারি কর্মচারী ও ৩৩ লক্ষ পেনশনারকে উপকৃত করেছে।
  • দৃষ্টিহীন ক্রিকেট টিমের বিশ্বকাপে সাফল্য ও প্যারালিম্পিকে আমাদের সাফল্য বুঝিয়েছে এক্ষেত্রেও আমরা কতটা এগিয়ে রয়েছি।
  • সমাজের সার্বিক উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করে চলেছে আমার সরকার। চার দশকের আমাদের সেনাদের দাবি, এক পদ এক পেনশন পূরণ করা হয়েছে।
  • আমার সরকার সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে অসাধারণ উদ্যোগ নিয়েছে। বারবার জঙ্গিদের আমাদের দেশে ঢোকার প্রচেষ্টাকে ব্যর্থ করেছে। ২৯ সেপ্টেম্বর সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করেছে। আমাদের সেরা ডিফেন্স আধিকারিকরা এতে অংশ নিয়েছেন।
  • সমাজের নীচুতলায় থাকা মানুষদের সামাজিক ও আর্থিক সমতা ফেরানোর কথা আমাদের সংবিধানে রয়েছে। তবে সেই কাজ করে দেখিয়েছে এই সরকার।
  • গরিবদের স্বার্থে নানা উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। কালো টাকা, দুর্নীতি, জাল নোট, জঙ্গিদের অনুদান সহ একাধিক সমস্যা দূর করতে ৮ নভেম্বর নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার।
  • ভীম অ্যার তৈরি করে অর্থনৈতিক উন্নতিকে তরান্বিত করেছে সরকার। বায়োমেট্রিক আধার পেমেন্ট খুব শীঘ্রই শুরু হতে চলেছে। ফলে খুব শীঘ্রই নতুন প্রযুক্তির পথে আমরা এগিয়ে যাব।
  • এই বছরের শেষে উত্তর-পূর্ব ভারতে মিটার গেজ লাইন বদলে যাবে ব্রড গেজ লাইনে।
  • সরকারি চাকরিতে যোগ দেওয়ার পদ্ধতিতে অনেক স্বচ্ছ্বতা এসেছে। এক দেশ এক কর, এক দেশ এক বাজার-কে মাথায় রেখে জিএসটি আনা হয়েছে। ১৭টি রাজ্য এই বিষয়টিতে অনুমোদন দিয়েছে।
  • আন্তর্জাতিক অর্থনীতিতে ভারত এখন বড় নাম। ২০১৪ সালের পর থেকে এফডিআই ও ফরেন এক্সচেঞ্জ রিজার্ভ ২০১৪ সালের পর থেকে ঊর্ধ্বমুখী।
  • রাজ্য সরকারগুলির সঙ্গ সাযুজ্য রেখে ব্যবসা ও সংষ্কারকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চেষ্টা করে চলেছে আমার সরকার।
  • গত চারদশক ধরে সন্ত্রাসবাদের সমস্যায় ভুগছে ভারত। তাই অন্য দেশগুলির সঙ্গে হাত মিলিয়ে সন্ত্রাসবাদ ও সন্ত্রাসবাদীদের শাস্তি দিতে বদ্ধপরিকর আমার সরকার। জম্মু ও কাশ্মীরে আমজনতা ও সেনার প্রাণ যাওয়া বড় চিন্তার বিষয়। মাওবাদী ২৬০০ জন আত্মসমর্পণ করেছে। উত্তর-পূর্ব ভারতও আগের চেয়ে অনেক শান্ত হয়েছে।
  • গত বছরের অক্টোবরে প্যারিস আবহাওয়া চুক্তি সই করেছে ভারত। আবহাওয়া পরিবর্তন নিয়ে আমাদের দায়বদ্ধতার কথা সারা বিশ্বকে জানানো গিয়েছে।
English summary
President Pranab Mukherjee address Parliament before Budget session
Please Wait while comments are loading...