Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

২৫ কিলোমিটার ম্যারাথন দৌড়ে তবেই বিয়ে করলেন দম্পতি

  • Posted By:
Subscribe to Oneindia News

কোলাপুর, ৪ ফেব্রুয়ারি : কয়েকদিন আগে শোনা গিয়েছিল, মহারাষ্ট্রের এক যুবক ও তাঁর প্রেমিকা কেরলের কোভালমে গিয়ে সমুদ্রের তলায় নেমে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে আংটি বদল করেছেন। এবার আর এক অভিনব বিয়ের খবর সামনে এল। আর এবারও সৌজন্য সেই মহারাষ্ট্রেরই এক দম্পতি।[(ছবি) কবর থেকে বের করে মৃত আত্মীয়ের "মেক-ওভার"! এটাই প্রথা এখানে!]

মহারাষ্ট্রের সাতারা জেলার কলোশী গ্রামে শুক্রবার আয়োজন হয়েছিল এক অভিনব বিয়ের। সেখানে বিয়েতে অভ্যগতরা তো বটেই এমনকী বর-কনে কেউই বিয়ের পোশাকে ছিলেন না। পরে ছিলেন টি-শার্ট ও ট্র্যাক স্যুট।[ভারতীয় বিয়ের অনুষ্ঠান দেখতে টাকা দিয়ে টিকিট কাটছেন বিদেশি পর্যটকেরা]

২৫ কিলোমিটার ম্যারাথন দৌড়ে তবেই বিয়ে করলেন দম্পতি

কারণ বিয়ের আগে তারা অংশ নেন ২৫ কিলোমিটার দীর্ঘ ম্যারাথন। নিজের গ্রাম থেকে ২৫ কিলোমিটার দৌড়ে সাতারা টাউনে গিয়ে ম্যারেজ রেজিস্ট্রেশন অফিসে পৌঁছে দুজনে বিয়ে করেন।[(ছবি) 'টয়লেট' নিয়ে এই মজাদার তথ্যগুলি আপনি জানেন কি?]

পাত্রের নাম নবনাথ দিঘে কলোশী গ্রামের বাসিন্দা। তিনি গত তিনবছর ধরে সাতারা ম্যারাথন অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে জড়িত। তাঁর সদ্য বিবাহিত স্ত্রী পুনমও ম্যারাথনার। একটি ম্যারাথন দৌড়ের সময়েই দুজনের আলাপ হয়। এরপরে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময়ে দুজনে ঠিক করেন একেবারে অভিনব উপায়ে বিয়ে করবেন তাঁরা।[(ছবি) এই 'বিস্ময়-শিশুদের' দেখলেই চমকে উঠবেন!]

নবনাথের একটি প্রিন্টার সারাইয়ের দোকান রয়েছে। মোট ৮বার ম্যারাথনে অংশ নিয়েছেন তিনি। এবং ম্যারাথনার হিসাবে সুনাম রয়েছে তাঁর। বিয়ে প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, ছোটবেলা থেকেই আমি দৌড়তে ভালোবাসি। বিয়ে ঠিক হওয়ার সময়ে বন্ধুরা মজা করে বলেছিল, ম্যারাথন না দৌড়লে বিয়ে করতে দেবে না।

পাত্র নবনাথ জানিয়েছেন, তিনি বিয়েতে আড়ম্বরের একেবারে বিপক্ষে। তাই একেবারে অনাড়ম্বরভাবে আমি বিয়ে করেছি। যে টাকা তাতে বেচেছে তা ফিটনেস সংক্রান্ত কোনও কাজেই খরচ করব।

English summary
The Kaloshi village in Satara district witnessed a unique 'baraat' on Friday morning. The guests at the marriage procession and the bride and groom were all dressed in T-shirts and tracks instead of wedding clothes, ready for a 25-km marathon run to the marriage registration office in Satara town.
Please Wait while comments are loading...