Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

একসময়ে মুলায়মকে খুনের ছক কষেছিল কংগ্রেস : নরেন্দ্র মোদী

  • Posted By:
Subscribe to Oneindia News
কনৌজ, ১৬ ফেব্রুায়ারি : উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচন ঘিরে ইতিমধ্যেই সরগরম ভারতীয় রাজনীতি। উত্তরপ্রদেশের পাখির চোখ করে রেখেছে সবকটি জাতীয় রাজনৈতিক দলই। আর এবার সেরাজ্যে বিজেপির নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে ফের একবার বিপক্ষকে একহাত নিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।['বেঁচে রয়েছেন', শুধুমাত্র এটা প্রমাণ করতে ভোটে দাঁড়িয়েছেন এই ব্যক্তি!]

উত্তরপ্রদেশে কংগ্রেসকে জুটি করে সমাজবাদী পার্টির নির্বাচন লড়ার সিদ্ধান্তকে তীব্র আক্রমণ করলেন বিজেপি নেতা তথা দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেন 'এক সময়ে সমাজবাদী পার্টির প্রতিষ্ঠাতা মুলায়ম সিং যাদবকে খুন করার ষড়যন্ত্র করেছিল কংগ্রেস।' আর সেই পার্টির সঙ্গেই আজ হাত মেলাচ্ছে সমাজবাদী পার্টি।[নিজেই নিজের মাথায় জুতোর ঘা মারলেন সপা প্রার্থী, দেখুন ভিডিও]

একসময়ে মুলায়মকে খুনের ছক কষেছিল কংগ্রেস : নরেন্দ্র মোদী

প্রসঙ্গত,১৯৮৪ সালে কংগ্রেস তাঁকে হত্যার ষড়যন্ত্র করছে বলে নিজেই দাবি করেন মুলায়ম। এবিষয়ে মোদী বলেন, "সে সময়ে এরকম একটি দাবির পর , আটল বিহারী বাজপেয়ি ও চরণ সিং মিলে কংগ্রেস বিরোধী শিবির হিসাবে রাষ্ট্রীয় লোক তান্ত্রিক মোর্চা গড়ে তোলেন।"[মানুষকে বোকা বানাতে, টাকা কামাতে ভোটে দাঁড়িয়েছি, সাফাই ভোটপ্রার্থীর]

দলীর প্রচারে মোদী বলেন,শুধুমাত্র ক্ষমতায় থাকার জন্য কংগ্রেসের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে মুলায়ম সিং যাদবের ছেলে অখিলেশ যাদব। যাদব পরিবারের অন্তর্দন্দ্বকে ফের একবার উস্কে এদিন তিনি আরও বলেন , অখিলেশ বুঝতে পারছেনা কংগ্রেসের আসল রূপ, কিন্তু তা ভালোভাবে জানেন মুলায়ম।

প্রসঙ্গত, ১৯৮৪ সালের ৪ মার্চ উত্তরপ্রদেশের এটাওয়াহ থেকে লখনউ যাওয়ার পথে মুলায়ম সিং এর গাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেয় একদল মানুষ। তখনই মুলায়ম সিং অভিযোগ তোলেন, তাঁকে হত্য়ার ছক কষে এই ঘটনা ঘটায় কংগ্রেস।

English summary
Prime Minister Narendra Modi launched a blistering attack on Uttar Pradesh chief minister Akhilesh Yadav for taking "politics to the nadir" by tying up with the Congress, the party that had "conspired" to have his father, Mulayam Singh Yadav, killed.
Please Wait while comments are loading...