Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

(ছবি) যে বিতর্কিত মন্তব্য বারবার শিরোনামে এনেছে উত্তরপ্রদেশের নয়া মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে

উত্তরপ্রদেশের নয়া মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে হিন্দুত্ববাদী নেতা যোগী আদিত্যনাথকে বেছে নিয়েছে বিজেপি। কী ধরনের মন্তব্য তাঁকে নেতিবাচক খ্যাতি এনে দিয়েছে তা দেখে নেওয়া যাক একনজরে।

Subscribe to Oneindia News

উত্তরপ্রদেশের নয়া মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে হিন্দুত্ববাদী নেতা যোগী আদিত্যনাথকে বেছে নিয়েছে বিজেপি। আর এর পিছনে আরএসএস-এর সবচেয়ে বড় অবদান রয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে। মূলত বিজেপি-আরএসএসের দীর্ঘ বৈঠকের পরই উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী বেছে নেওয়া হয়। আর সেক্ষেত্রে রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘের মতামতই যে প্রাধান্য পেয়েছে তা বলা বাহুল্য।

যোগী আদিত্যনাথকে নিয়ে নানা অজানা তথ্য একনজরে

এহেন যোগী আদিত্যনাথ কেন্দ্রীয় এনডিএ সরকারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছেন। তবে একইসঙ্গে হিন্দুত্ববাদী এই নেতা বারবার নানা বিতর্কিত মন্তব্য করে সংবাদ শিরোনামে এসেছেন। কী ধরনের মন্তব্য তাঁকে নেতিবাচক খ্যাতি এনে দিয়েছে তা দেখে নেওয়া যাক একনজরে।

হিন্দু রাষ্ট্র বিষয়ে

২০০৫ সালে উত্তরপ্রদেশের এটাহে এক জনসভায় ভাষণ দিতে গিয়ে যোগী আদিত্যনাথ বলেন, আমি উত্তরপ্রদেশ তথা ভারতবর্ষকে হিন্দু রাষ্ট্র না করা পর্যন্ত থামব না।

সংখ্যালঘু বিষয়ে

সমাজবাদী পার্টির কার্যকালে আড়াই বছরে পশ্চিম উত্তরপ্রদেশে ৪৫০টি দাঙ্গার ঘটনা ঘটেছে। কারণ সপায় সময়ে একটি নির্দিষ্ট সম্প্রদায়ের লোক সংখ্যায় বহুগুণ বেড়ে গিয়েছে। কেন উত্তরপ্রদেশের উত্তরে কোনও এমন ঘটনা ঘটেনি? এটা সহজেই অনুমেয়। যে এলাকায় ১০-২০ শতাংশ সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাস, সেখানে ধর্মগত বিরোধ ঘটছে। ২০-৩৫ শতাংশ যেখানে সংখ্যালঘুর বাস সেখানে জাতি দাঙ্গার অবস্থা ভয়াবহ। আর যে এলাকায় ৩৫ শতাংশের বেশি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাস সেখানে অমুসলমানদের কোনও স্থান নেই।

কাইরানা প্রসঙ্গে

যোগী আদিত্যনাথ শুধু আজকের কথা বলছে না, আমি ভবিষ্যতের কথা বলছি। হিন্দুদের প্রস্থান আমাদের কাছে সিরিয়াস বিষয়। বিজেপি পশ্চিম উত্তরপ্রদেশকে আর একটা কাশ্মীরে পরিণত হতে দেবে না।

মাদার টেরেজা প্রসঙ্গে

মাদার টেরেজা ভারতীয়দের খ্রিস্ট ধর্মে রূপান্তরিত করার চক্রান্তের অংশ ছিলেন। হিন্দুদের সেবার নামে ধর্ম বদল করে দেওয়া হয়েছে।

যোগ প্রসঙ্গে

ভগবান শিব সবচেয়ে বড় যোগী ছিলেন। তিনি যোগ চালু করেন। শিব দেশের প্রতিটি রন্ধ্রে রয়েছেন। ফলে যারা ভগবান শিব ও যোগকে মানেন না তারা হিন্দুস্তান ছেড়ে চলে যেতে পারেন।

শাহরুখ খান প্রসঙ্গে

শাহরুখের মনে রাখা উচিত যদি মানুষ তার সিনেমা বয়কট করে, তাহলে তাকেও অন্য মুসলমানদের মতো রাস্তায় ঘুরে বেড়াতে হবে। এই ধরনের মানুষরা সন্ত্রাসবাদীদের ঢংয়ে কথা বলেন। তাই আমি মনে করি হাফিজ সঈদ ও শাহরুখ খানের ভাষায় কোনও ফারাক নেই।

ধর্মান্তকরণ প্রসঙ্গে

যদি একটিও হিন্দু মেয়েকে ধর্মান্তরিত করা হয় তাহলে আমরা ১০০ মুসলমান মেয়ের ধর্মান্তকরণ করব। যেভাবে হিন্দু মেয়েদের অপমান করা হচ্ছে তাতে আমার মনে হয় তা সমাজ তা মেনে নেবে বলে। যদি এই বিষয়ে সরকার কোনও পদক্ষেপ না করে তাহলে হিন্দুরাই নিজেদের হাতে বিষয়টি দেখবে।

সাম্প্রদায়িক ঐক্য প্রসঙ্গে

২০১৪ সালে সংসদে দাঁড়িয়ে বিজেপি সাংসদ যোগী আদিত্যনাথ বলেন, বিজেপি বিরোধী দলগুলি নিজেদের অসাম্প্রদায়িক বলে দাবি করে। তবে তাদের যা অ্যাজেন্ডা তা সাম্প্রদায়িক। সারা দেশে ১২ লক্ষ হিন্দু সন্ন্যাসী রয়েছে। আর আপনারা শুধু ইমামদের ভাতা দিচ্ছেন। এটা কি ধর্মনিরপেক্ষতার উদাহরণ?

English summary
Top controversial comments by Yogi Adityanath, The new Uttar Pradesh CM
Please Wait while comments are loading...