Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

(ছবি) ১১২ বছর পুরনো হেরিটেজ ট্রেনের টানে হিমাচলে ভিড় পর্যটকদের

  • Posted By:
Subscribe to Oneindia News

পাহাড় আর তার গায়ে লেপ্টে থাকা সবুজ , নদী আর কোথাও বা বরফ! হিমাচলকে প্রকৃতি যেন নিজের সব রঙ দিয়ে সাজিয়ে রেখেছে। হিমাচলের মনোরম আবহাওয়ার পাশপাশি চোখ জোড়ানো প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের কথা তো সবারই জানা। কিন্তু খবর সেটা নয়।

খবর হল হিমাচলের সিমলার ১১২ বছরের পুরনো KC520 স্টিম ইঞ্জিনকে নিয়ে। ১৯৭০ সালের পর থেকে দেশে স্টিম ইঞ্জিন চালিত ট্রেন বন্ধ করে ডিজেল চালিত ট্রেন প্রচলিত হয়। কিন্তু তারপরও সিমলার এই হেরিটেজ ট্রেন এখনও সঙ্গে নিয়ে বেড়ায় ১১২ বছরের ইতিহাসকে। হিমাচলে বেড়ানোর এখন মুখ্য আকর্ষণ এই ঐতিহ্যশালী স্টিম ইঞ্জিন চালিত ট্রেন। পর্যটকের ভিড় এখন এই ঐতিহ্যশালী ট্রেনকে ঘিরেই।

১১২ বছরের পুরনো স্টিম ইঞ্জিন

১১২ বছরের পুরনো স্টিম ইঞ্জিন

হিমাচল প্রদেশের সিমলা চিরকালই পর্যটকদের প্রাণকেন্দ্র। সিমলাকে কেন্দ্র করে বেড়ানোর পরিকল্পনা অনেকেই করেছেন। তবে সিমলায় আসা পর্যটকরা এখন মজেছেন ১১২ বছরের পুরনো হেরিটেজ ট্রেনে। বড়দের পাশপাশি ট্রেন সফর ঘিরে উচ্ছাস রয়েছে কচিকাচাদেরও। পর্যটকদের ভিড়ে হিমাচলপ্রদেশ পর্যটন বিভাগের একটি অনন্য সম্পদ হয়ে রয়েছে এই হেরিটেজ ট্রেন।

কালকা- সিমলা হেরিটেজ রেলপথ

কালকা- সিমলা হেরিটেজ রেলপথ

বিশ্বের অন্যতম বিরল রেলপথ হল কালকা সিমলা হেরিটেজ লাইন। ঐতিহ্যবাহী এই রেলপথ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের পাশপাশি একটা গোটা উপত্যকার ইতিহাসকেও নিজের সঙ্গে এগিয়ে নিয়ে চলেছে। রাষ্ট্রসংঘের 'হেরিটেজ' সম্মানে ভূষিত হয়েছে এই রেলপথ।

ট্রেনের বুকিং

ট্রেনের বুকিং

এক মাস আগে থেকে এই ট্রেনের জন্য বুকিং চলে। বিশেষত গরম কাল ও শীতকাল জুড়ে পর্যটকদের ভিড়ের জন্য একমাস আগে থেকে বুকিং করে নিতে হয়। IRCTC এর ওয়েবসাইট থকে কালকা-সিমলা রেলপথ সফরের জন্য টিকিট বুকিং করা যায়।

ট্রেন সফর

ট্রেন সফর

রেলপথে কালকা থেকে সিমলা বা সিমলা থেকে কালকা আসতে সময় লাগে ৫ থেকে ৬ ঘণ্টা । ট্রেন সোলান, কান্দাঘাট, বারোগ সহ একাধিক জায়গা পেরিয়ে গন্তব্যে পৌঁছয়। রেলপথ জুড়ে রয়েছে ১০৩ টি টানেল। সফরের সময় একের পর এক মনোরম দৃশ্য আপনার আকর্ষণ কাড়তে বাধ্য।

বিদেশি পর্যটকদের আকর্ষণ

বিদেশি পর্যটকদের আকর্ষণ

হিমাচলে দেশ বিদেশ থেকে আসা পর্যটকদের কাছে সবচেয়ে বেশি আকর্ষণ রয়েছে এই হেরিটেজ ট্রেনটির। প্রতিঘণ্টায় ২০ থেকে ২২ কিলোমিটার বেগে চলা এই ট্রেনের সফর ঘিরে তারা বিশেষ উৎসাহি বলে প্রাকশিত হয় এক সংবাদসংস্থার রিপোর্টে।

English summary
The heritage steam engine of about 112-year old is becoming the preference of foreign tourists in Himachal Pradesh's Shimla.The tourists can book heritage engine KC520 and enjoy it. The first train arrived in Shimla on November 9, 1903; and engine KC520 was commissioned in 1906.
Please Wait while comments are loading...