Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

২০১৬ সালে যে বিশিষ্ট ব্যক্তিদের আমরা হারিয়েছি

Subscribe to Oneindia News

২০১৬ সাল শেষের পথে। এই বছরটা যেমন একাধিক মধুর স্মৃতি দিয়েছে, তেমনই বহু বিশিষ্ট ব্যক্তির প্রয়াণে তৈরি হয়েছে শোকের আবহ।

আসুন একঝলকে দেখে নেওয়া যাক ২০১৬ সালে আমরা কোন কোন বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বকে হারিয়েছি।

মুফতি মহম্মদ সঈদ

মুফতি মহম্মদ সঈদ

জম্মু-কাশ্মীরের দুবারের মুখ্যমন্ত্রী মুফতি মহম্মদ সঈদ মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীনই গত ৭ জানুয়ারি দিল্লির এইমস-এ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ প্রত্যঙ্গ নষ্ট হয়ে যাওয়ার ফলেই তাঁর মৃত্যু হয়।

শুধু মুখ্যমন্ত্রী নয়, ১৯৮৯ সালের ডিসেম্বর থেকে ১৯৯০ সালের নভেম্বর মাস পর্যন্ত কেন্দ্রীয় মন্ত্রীও ছিলেন তিনি। ১৯৯৯ সালের জুলাই মাসে জম্মু ও কাশ্মীরে নিজের দল পিওপলস ডেমোক্রেটিক পার্টি তথা পিডিপি গঠন করে তিনি।[প্রয়াত হলেন জম্মু-কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী মুফতি মহম্মদ সঈদ]

পূর্ণ সাংমা

পূর্ণ সাংমা

১৯৯৬ সাল থেকে ১৯৯৮ সা পর্যন্ত লোকসভার স্পিকার ছিলেন পিএ সাংমা। এছাড়া ১৯৮৮ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত তিনি মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ৪ মার্চ তাঁর মৃত্যু হয়। ১৯৯৯ সালে শরদ পাওয়ারের সঙ্গে ন্যাশনাল কংগ্রেস পার্টির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ছিলেন।

২০০৪ সালে এনসিপি থেকে বেরিয়ে আসেন তিনি। ২০১২ সালে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে কংগ্রেসের বরিষ্ঠ নেতা ও প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী প্রণব মুখোপাধ্যায়ের কাছে হারেন।

প্রত্যুষা বন্দ্যোপাধ্যায়

প্রত্যুষা বন্দ্যোপাধ্যায়

টেলিভিশনের জনপ্রিয় ধারাবাহিক বালিকা বধূ ধারাবাহিকের মুখ্যচরিত্রে অভিনয় করে অল্পদিনেই জনপ্রিয়তা কুড়িয়েছিলেন প্রত্যুষা। ১ এপ্রিল তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করা হয়।

জোর জল্পনা শুরু হয় বয়ফ্রেন্ড রাহুল রাজের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতির জেরেই আত্মহত্যা করেন প্রত্যুষা। বালিকা বধূ ছাড়াও ঝলক দিখলা যা ৫, বিগ বস ৭ এবং পাওয়ার কপল রিয়্যালিটি শো-তেও অংশ নিয়েছিলেন তিনি।[গলায় দড়ির ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা 'বালিকা বধূ' অভিনেত্রী প্রত্যুষা বন্দ্যোপাধ্যায়ের]

মহাশ্বেতা দেবী

মহাশ্বেতা দেবী

দীর্ঘদিন বয়সজনিত কারণে হাসপাতালে ভর্তি থাকার পর ২৮ জুলাই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হন মহাশ্বেতা দেবী।

সাহিত্য কীর্তির জন্য ১৯৭৯ সালে সাহিত্য অ্যাকাডেমি সম্মানে সম্মানিত হন মহাশ্বেতা দেবী। পদ্মবিভূষণ, জ্ঞানপীঠ, বঙ্গবিভূষণ সহ একাধিক সম্মানে সম্মানিত হয়েছিলেন তিনি। মহাশ্বেতা দেবীর উল্লেখযোগ্য সাহিত্যের মধ্যে রয়েছে হাজার চুরাশির মা, তিন কড়ির সাধের মতো কালজয়ী লেখা। লেখার পাশাপাশি জনআন্দোলনে এক অন্যতম মুখ ছিলেন মহাশ্বেতা দেবী।[নব্বইয়ে বিদায়, চলে গেলেন প্রখ্যাত সাহিত্যিক মহাশ্বেতা দেবী!]

পরমেশ্বর গোদরেজ

পরমেশ্বর গোদরেজ

ফুসফুসের গুরুতর সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে ১০ অক্টোবর মৃত্যু হয় গোদরেজ গোষ্ঠীর চেয়ারম্য়ান আদি গোদরেজের স্ত্রী পরমেশ্বর গোদরেজ।

শুধু আদি গোদরেজের স্ত্রী হওয়ার জন্য নয়, এইডস-এর মোকাবিলায় একাধিক কাজ করেছেন এই সমাজসেবী।

জে জয়ললিতা

জে জয়ললিতা

দীর্ঘদিন অসুস্থতার কারণে হাসপাতালে থাকার পর ৫ ডিসেম্বর হাসপাতালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী জে জয়ললিতা। তামিলনাড়ুর ৬ বারের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন তিনি।

১৯৯১ সালে প্রথমবার তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে শপথ নেন তিনি। এরপরে আরও চারবার মুখ্যমন্ত্রীর পদ সামলেছেন এই নেত্রী। শেষবার বিধানসভা ভোটে জিতে মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে নির্বাচিত হন ২০১৬ সালের মে মাসে। তবে শুরুটা ছিল অভিনয় জগতে অভিনয় দিয়ে।[জে জয়ললিতার জীবনী একনজরে]

ফিদেল কাস্ত্রো

ফিদেল কাস্ত্রো

কিউবার মহান বিপ্লবী, সমাজতান্ত্রিক নেতা ফিদেল কাস্ত্রোর প্রয়াণ হয় ২৬ নভেম্বর। নব্বই বছর বয়সে বয়সজনিত কারণে তাঁর মৃত্যু হয়।

ফিদেল কাস্ত্রো ১৯৫৯ সাল থেকে ১৯৭৬ সাল পর্যন্ত কিউবার প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। এরপরে ১৯৭৬ থেকে ২০০৮ পর্যন্ত কিউবার রাষ্ট্রপতির পদ সামলান। ২০০৮ এর দায়িত্ব ছেড়ে দেন ভাই রাউল কাস্ত্রোর হাতে। ধীরে ধীরে সরে যান রাজনীতি থেকে।

কিউবার কমিউনিস্ট পার্টির প্রথম সম্পাদক ছিলেন তিনি। ১৯৬১ সালে দল তৈরি হলে তখন থেকে শুরু করে ২০১১ সাল পর্যন্ত তিনি পদে ছিলেন। তাঁর নেতৃত্বে কিউবা একটি একদলীয় সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসাবে বিশ্বের দরবারে পরিগণিত হয়।[কিউবার বিপ্লবী সমাজতান্ত্রিক নেতা ফিদেল কাস্ত্রো ৯০ বছর বয়সে প্রয়াত]

পণ্ডিত শঙ্কর ঘোষ

পণ্ডিত শঙ্কর ঘোষ

ফারুকাবাদ ঘরানার জনপ্রিয় তবলাবাদক পণ্ডিত শঙ্কর ঘোষ দীর্ঘদিন কোমায় থাকার পর ২২ জানুয়ারি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। ১৯৯৯-২০০০ সালে সঙ্গীত নাটক অ্যাকাডেমি পুরস্কার পেয়েছিলেন। ছেলে বিক্রম ঘোষকেও তিনিই তবলার প্রশিক্ষণ দিয়েছিলেন।

অরবিন্দ মুখোপাধ্যায়

অরবিন্দ মুখোপাধ্যায়

কিংবদন্তী বাঙালি পরিচালক অরবিন্দ মুখোপাধ্যায় ১০ ফেব্রুয়ারি বয়স জনিত কারণে প্রয়াত হন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৬। ধন্যি মেয়ে, মৌচাক-এর মতো হাসির ছবির পাশাপাশি নিশিপদ্ম, অমরপ্রেম-এর মতো ছবিরও পরিচালনা করেছিলেন। এছাড়াও তাঁর জনপ্রিয় কাজের মধ্যে অগ্নিশ্বর, কেনারাম বেচারাম, মন্ত্রমুগ্ধ-র মতো ছবি পরিচালনা করেছেন।

English summary
Eminant personality whom we lost in 2016
Please Wait while comments are loading...