Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

দেদার পুজোর পুরস্কার বিতরণ তৃণমূল কংগ্রেসের সংগঠন বিস্তারের এক কার্যকরী পন্থা

  • By: SHUBHAM GHOSH
Subscribe to Oneindia News

নিরীশ্বরবাদী বামেদের সময়ে এসবের প্রয়োজন পড়ত না৷ তাঁদের মার্ক্সীয় আরাধনা এবং শক্তপোক্ত সংগঠন থাকার কারণে আলাদা করে দুর্গাপুজোকে জনসংযোগের হাতিয়ার বানানোর দরকার খুব একটা ছিল না ৷ কিন্তু এখন দিনকাল বদলে গিয়েছে৷ এখনকার শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস-এর কাছে দুর্গাপুজো সংগঠন বিস্তারের একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম৷ এবং দলের ৷ বিভিন্ন নেতা এই কাজটি করে থাকেন বেশ নিষ্ঠার সঙ্গেই ৷

তবে মাঝে মধ্যে তাঁরা একটু বাড়াবাড়িও করে ফেলেন ৷ এই যেমন সম্প্রতি কলকাতার একটি প্রথম সারির দৈনিকে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে শহরের পুরসভা দূর্গাপুজো সংক্রান্ত পুরস্কার দেওয়া নিয়ে পক্ষপাতিত্ব করেছে৷ কারণ পুরসভার তরফে যে তালিকা বের করা হয়েছে তাতে বেশিরভাগই তৃণমূলের প্রভাবশালী নেতা এবং মন্ত্রীদের পুজো৷ যে-সমস্ত পুজো কমিটির মাথায় পুরসভার হর্তাকর্তারা রয়েছেন, পুরস্কার পাচ্ছে তারাও ৷

দেদার পুজোর পুরস্কার বিতরণ তৃণমূল কংগ্রেসের সংগঠন বিস্তারের এক কার্যকরী পন্থা

অভিযোগ উঠেছে যে সংশ্লিষ্ট পুজোমণ্ডপগুলিতে পা না রেখে দূরে বসে ভিডিও ক্লিপিংস দেখেই নাকি তালিকা তৈরি হয়ে যাচ্ছে ৷ কলকাতার মেয়র নিজেই নাকি ৫০টি পুজোকে মনোনীত করেছেন ৷

যদিও পুরসভার তরফ থেকে বলা হয়েছে সমস্তটাই হয়েছে নিয়ম মেনে, কিনতু তাতে চিঁড়ে ভেজার কথা নয় ৷ কারণটি খুব সহজ ৷ তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় আসার পরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নানা সময়ে দেখা গিয়েছে পাড়ার ক্লাব বা গোষ্ঠীকে দু'হাত ভরে অনুদান দিতে ৷ কারণ, রাজনৈতিক বা আদর্শগত কোনও 'পুল ফ্যাক্টর' না থাকাতে তৃণমূলকে স্থানীয়স্তরে সংগঠন দৃঢ় ওভাবেই করতে হবে ৷

নির্বাচনে জিততে নেতা-নেত্রীদের নির্ভর করতে হয় ক্যাডারদের উপরে আর ক্যাডারদের দলে টানতে দিতে হয় অনুদান ৷ মধ্যবিত্তের চোখে ব্যাপারটা খারাপ ঠেকলেও রাজনীতি নামক মেশিনটিকে চালু রাখতে এই পন্থা খুবই প্রয়োজন ৷ বিশেষ করে, বড়মাপের নেতা যখন একনায়িকার দলে আর নেই, তখন অনুদানই ভরসা, তাতে রাজ্যের অর্থনীতি চুলোয় গেলে যাক ৷

পুজোর পুরস্কারও অনুদানের রাজনীতি; তবে তা আসে ঝকঝকে মোড়কে

আর এই দেওয়া-নেওয়ার রাজনীতিকেই আরও ঝকঝকে মোড়কে হাজির করা হয় দুর্গাপুজোর সময়ে ৷ নগ্ন অনুদানের চেয়ে পুরস্কার প্রদান করলে তা যেমন অনেক সাংস্কৃতিক হয়, তেমনই সবার অলক্ষ্যে কাছে টেনে নেওয়া যায় পাড়ার পর পাড়া ৷ যে মধ্যবিত্ত ক্লাবকে অনুদান দেওয়ার ব্যাপারটা খুব সহজ চোখে দেখে না, পুজোর পুরস্কার তার কাছে অতটা খারাপ থেকে না কারণ পুজোর শিল্পকলা ইত্যাদির বিনিময়ে পুরস্কার পাওয়াটার মধ্যে একটা অর্থনৈতিক বৈধতা রয়েছে ৷ নিছক কারণে কাঁচা পয়সা দানের মধ্যে যা নেই ৷ অর্থাৎ, রাজাও খুশ, প্রজাও খুশ ৷

সংগঠনের বিচারে অতীতের বামেদের তুলনায় তৃণমূলকে অনেক ক্ষেত্রেই কমজোরি মনে করা হলেও এই দুর্গাপুজোকালীন পুরস্কারের 'ফিল-গুড' রাজনীতি কিনতু রাজনৈতিক লক্ষ্যপূরণের ব্যাপারে তৃণমূলকে অনেকটাই সাহায্য করেছে ৷

English summary
Durga Pujas organised by Trinamool Congress leaders are being rewarded to spread the party's organisation
Please Wait while comments are loading...