Oneindia থেকে ব্রেকিং নিউজের আপডেট পেতে

সারাদিন ধরে চটজলটি নিউজ আপডেট পান

You can manage them any time in browser settings

(ছবি) নাহিদ আফরিনের আগে এই তারকারদের বিরুদ্ধেও জারি হয়েছে ফতোয়া

নাহিদ আফরিন প্রথমবার নয়, এর আগেও একাধিকবার অভিনেতা, সঙ্গীতশিল্পীদের এই ধরণের ধর্মগুরুদের ফতোয়ার মুখে পড়তে হয়েছে। কারা রয়েছেন এই তালিকায় জানেন?

Subscribe to Oneindia News

সম্প্রতি ১৬ বছরের নাহিদ আফরিনের বিরুদ্ধে একটি ফতোয়া জারি করে প্রায় ৪০ জন মুসলিম ধর্মগুরু। ইন্ডিয়ান আইডল জুনিয়রের প্রথম রানার আপ ছিলেন নাহিদ। কিন্তু তার মঞ্চে গান গাওয়া নিয়েই ফতোয়া জারি করেছে মুসলিম ধর্মগুরুরা।

তবে এই প্রথমবার নয়, এর আগেও একাধিকবার অভিনেতা, সঙ্গীতশিল্পীদের এই ধরণের ধর্মগুরুদের ফতোয়ার মুখে পড়তে হয়েছে। কারা রয়েছেন এই তালিকায় আসুন একঝলকে দেখে নেওয়া যাক!

জিমি শেরগিল

বলিউডের বহু ছবিতে গুরুত্বপূর্ণ পার্শ্বচরিত্রে অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে জিমিকে। ২০১৬ সালে দক্ষ এই অভিনেতার শোরগুল ছবিতে অভিনয় নিয়ে ফতোয়া জারি হয়েছিল।২০১৩ সালের মুজাফ্ফরনগর দাঙ্গার প্রেক্ষাপটে এই ছবি তৈরি হয়েছিল। উত্তরপ্রদেশের বহু এলাকায় এই ছবি নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। ফতোয়ায় বলা হয়েছিল জিমি মুসলিম সম্প্রদায়ের ভাবাবেগকে আঘাত করেছেন। এই ছবির এমন কিছু দৃশ্যে তিনি অভিনয় করেছেন এবং সংলাপ বলেছেন যার জেরে মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে অশান্ত পরিবেশ তৈরি হবে।

এ আর রহমান

সুন্নি দল রাজা অ্যাকাডেমি একবার এ আর রহমানের বিরুদ্ধে ফতোয়া জারি করেছিল। মহম্মদ : ম্যাসেঞ্জার অফ গড ছবির জন্য জনপ্রিয় ইরানি পরিচালক মাজিদ মাজিদির সঙ্গে কাজ করার জন্য তাঁকে ফতোয়া দেওয়া হয়েছিল।

শাহরুখ খান

২০১৩ সালে মারকাজি দারুল ইফতা দরগা অল হজরত বলিউডের বাদশা শাহরুখ খানের বিরুদ্ধে ফতোয়া জারি করেছিল। আর এই ফতোয়ার কারণ ছিল সন্তানের জন্মের আগে তার লিঙ্গ পরীক্ষা করানো এবং সন্তানের জন্ম দেওয়ার জন্য স্যারোগেসির সাহায্য নেওয়া। যদিও শাহরুখ সন্তানের জন্মের আগে তার লিঙ্গ নির্ধারণের বিষয়টি অস্বীকার করেছিলেন।

সলমন খান

২০০৭ সালে গণপতি পুজোয় অংশ নিয়েছিলেন সলমন যেখানে গায়ক সোনু নিগম আরতি করেছিলেন। বারেলির দারুল-ইফতা-মঞ্জর-ই-ইসলাম অভিনেতার বিরুদ্ধে ফতোয়া জারি করেছিল। ২০০৮ সালে মাদাম তুসোর যাদুঘরে নিজের মোমের মূর্তি উন্মোচন করার পর আর একবার দেহরাদুনের মুফতি দারুল ইফতা সলিম আহমেদ কাসমি সলমনের বিরুদ্ধে ফতোয়া জারি করেছিলেন।

তসলিমা নাসরিন

১৯৯৩ সালে তসলিমার লেখা গল্প লজ্জা নিয়ে সিনেমাও তৈরি হয়েছিল আর তারই জেরে তসলিমাপর বিরুদ্ধে ফতোয়া জারি করেছিল উত্তরপ্রদেশের মৌলানা তাকির রাজা খান, যিনি তসলিমার কাজকে মুসলমান বিরোধী বলে ব্যখ্যা করেছিলেন

English summary
Before Nahid Afrin, these stars were issued fatwas too
Please Wait while comments are loading...